kalerkantho


শ্রীপুরে নেতার সংবর্ধনা নিয়ে বিতর্ক!

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, গাজীপুর   

১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



গাজীপুরের শ্রীপুরে জেলা আওয়ামী লীগের এক নেতার সংবর্ধনা আয়োজন ঘিরে খোদ দলের ভেতর বিতর্ক দেখা দিয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় নেতাকর্মীরা ওই সংবর্ধনার আয়োজনকে ষড়যন্ত্রের অংশ বলে দাবি করেছে। ফলে কর্মীদের সতর্ক থাকার জন্যও বর্ধিত সভায় আহ্বান জানানো হয়।

নেতাকর্মীরা অভিযোগ করে, স্থানীয় সংসদ সদস্য, উপজেলা আওয়ামী লীগসহ অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী বাদ দিয়ে সংবর্ধনার আয়োজন চলছে। তবে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট শামসুল আলম প্রধান বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ও দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনা জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইকবাল হোসেন সবুজকে সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দিয়ে দল গোছানোর নির্দেশ দেন বলে শোনা যাচ্ছে। ’ তিনি দাবি করেন, ‘গঠন করা কমিটির কোনো অনুলিপি আমরা পাইনি। ’ তবে জেলা আওয়ামী লীগ যদি কাউকে সংবর্ধনা দিতে বলে তাহলে আমাদের তো তাই করতে হবে। তিনি বলেন, জেলা আওয়ামী লীগের নির্দেশেই শ্রীপুরে আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি ইকবাল হোসেন সবুজকে সংবর্ধনা দেওয়ার প্রস্তুতি চলছে। ’

ওই সংবর্ধনা অনুষ্ঠান উপলক্ষে গতকাল দলীয় কার্যালয়ে বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন অ্যাডভোকেট শামসুল আলম প্রধান। বর্ধিত সভায় বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট জামিল হাসান দুর্জয়, শ্রীপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান বুলবুল, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম বুলবুল, সাধারণ সম্পাদক শেখ নজরুল ইসলাম, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি কমর উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান জামান, উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি কবির হোসেন প্রমুখ।

বর্ধিত সভায় জামিল হাসান দুর্জয় বলেন, ‘স্থানীয় সংসদ সদস্যকে না জানিয়ে তাঁর নির্বাচনী এলাকায় কখনোই দলীয় কোনো অনুষ্ঠান করেননি কেন্দ্রীয় কোনো নেতা কিংবা মন্ত্রীও। সরকারি কোনো কর্মসূচিও অ্যাডভোকেট রহমত আলীকে বাইরে রেখে করা হয়নি। ’ তিনি দাবি করেন, ‘দলের গঠনতন্ত্রেও এটা নেই। ’

বর্ধিত সভায় গত ২০১৪ সালে নিহত ছাত্রলীগ নেতা আল আমীন হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করে নেতাকর্মীরা। সভা শেষে নেতাকর্মীরা আল আমিন হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবি জানিয়ে মিছিল করেন।


মন্তব্য