kalerkantho


বাঁশখালীর কুম্ভমেলায় তীর্থযাত্রীর ঢল

বাঁশখালী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



চট্টগ্রামের বাঁশখালীর প্রাচীন কোকদণ্ডী ঋষিধামে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক কুম্ভমেলায় দেশ-বিদেশের সাধু-সন্ন্যাসী-বৈষ্ণব, সংগীতশিল্পীসহ হাজারো তীর্থযাত্রীর ঢল নেমেছে। এর মধ্যে ভারত ও নেদারল্যান্ডস থেকে এসেছেন অন্তত ২৭ জন সাধু-সন্ন্যাসী।

গত ৫ ফেব্রুয়ারি শুরু হওয়া এ অনুষ্ঠান ১২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলবে। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সংগীত পরিবেশন করেন ভারতের প্রখ্যাত কীর্তনীয় শিল্পী অদিতি মুন্সী। প্রতিদিন বিভিন্ন ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠানের পাশাপাশি বিভিন্ন স্টলে ব্যাপক বেচাকেনা চলছে। ঋষিধামের নিজস্ব ৪৪ একর জায়গা ছাড়াও আশপাশের ৮০ একর এলাকাজুড়ে গত তিন দিনে ব্যাপক মানুষের উপস্থিতি কুম্ভমেলাকে প্রাণবন্ত করে তুলেছে। পাঁচ কোটি টাকা ব্যয়ে নবনির্মিত স্বামীজি অদ্বৈতান্দপুরী মহারাজের মূল মন্দিরে আলোকসজ্জা করা হয়েছে।

এদিকে স্থানীয় প্রশাসন ও মেলা কমিটির উদ্যোগে ২৬টি উপকমিটির মাধ্যমে এক হাজার ৭০০ জন কর্মী সার্বক্ষণিক কাজ করে যাচ্ছে। ৮০ একর এলাকাজুড়ে সিসি ক্যামেরা বসানো হয়েছে। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তিন শতাধিক সদস্য এখানে কর্মরত আছেন।

বাঁশখালীর ঋষিধামের মোহন্ত মহারাজ সুদর্শনানন্দ পুরী মহারাজ, ঋষিকুম্ভ ও কুম্ভমেলার আহ্বায়ক ও রাউজান পৌরসভার মেয়র দেবাশিষ পালিত ও সদস্যসচিব অ্যাডভোকেট অনুপম বিশ্বাস বলেন, প্রশাসনের সার্বিক সহযোগিতায় অনুষ্ঠান সুন্দরভাবে সম্পন্ন হচ্ছে।

বাকি দিনগুলোতে অনুষ্ঠানসূচির মধ্যে রয়েছে গীতা পাঠ, ঋষিধ্বজা উত্তোলন, বেদমন্ত্র পাঠ, ১০৮ দীপমণ্ডিত মঙ্গলপ্রদীপ প্রজ্বালন, গুরু মহারাজের পূজা, দশমহাবিদ্যা পূজা, আন্তর্জাতিক ঋষি সম্মেলন, সনাতন ধর্ম সম্মেলন, সংগীতাঞ্জলি, রাষ্ট্রীয় মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও সচিব পর্যায়ের কর্মকর্তাদের বরণসভা, মহাপ্রসাদ বিতরণ, দেশি-বিদেশি ধর্মীয় শিল্পীদের নৃত্য ও গান, নাটক, গীতালেখ্য ইত্যাদি।


মন্তব্য