kalerkantho


ভ্যানচালক হত্যা মামলা

কুষ্টিয়ায় ছয়জনকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুষ্টিয়া   

৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



কুষ্টিয়ায় চাঞ্চল্যকর আবু বক্কর সিদ্দিক হত্যা মামলার রায়ে ছয় আসামিকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর ও পাঁচ হাজার টাকা করে জরিমানার আদেশ দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার দুপুরে কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক রেজা মো. আলমগীর হাসান জনাকীর্ণ আদালতে এ রায় দেন। মৃত্যুদণ্ডের আদেশ পাওয়া আসামিরা হলো সাজ্জাদ, মাজেদ, শুকচাদ, রাশিদুল ইসলাম, কালাই ও মনছের আলী। তাদের মধ্যে পাঁচ আসামি আদালতে উপস্থিত ছিল। অন্য আসামি রাশিদুল ইসলাম পলাতক রয়েছে।

কুষ্টিয়া আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট অনুপ কমার নন্দী জানান, কুষ্টিয়া সদর উপজেলার জিয়ারখি ইউনিয়নের জোতপাড়া গ্রামের আব্দুল জলিল মণ্ডলের ছেলে ভ্যানচালক আবু বক্কর সিদ্দিক ২০১২ সালের ১০ জুন সন্ধ্যায় বাড়িতে ভ্যান রেখে চায়ের দোকানে বসেছিলেন। রাত ১০টার দিকে আসামিরা আবু বক্করকে ডেকে পাশের মাঠে নিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলাকেটে নৃশংসভাবে হত্যা করে। পরদিন সকালে জোতপাড়া কাঞ্চিখালী মাঠ থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় সিদ্দিকের বড় ভাই মুদি দোকানদার নুর হক মণ্ডল বাদী হয়ে সাজ্জাদ ও মাজেদকে প্রধান আসামি করে সাতজনের বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। তাদের মধ্যে এ মামলার আসামি কামরুল ইসলাম পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে নিহত হয়। মামলায় বিচারকাজ ও দীর্ঘ শুনানি শেষে আসামিদের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় বিচারক ছয় আসামিকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ ও পাঁচ হাজার টাকা করে জরিমানার আদেশ দেন।

এ সময় আদালতে দণ্ড পাওয়া পাঁচ আসামি এবং বাদী ও বিবাদী পক্ষের লোকজন উপস্থিত ছিল। পরে আসামিদের কঠোর নিরাপত্তায় জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

চাঁদপুরে একজনের ফাঁসি এদিকে চাঁদপুর প্রতিনিধি জানান, মতলব দক্ষিণে স্ত্রী ও সন্তানকে হত্যার দায়ে নাজমুল হাসান নামে একজনকে ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন জেলা ও দায়রা জজ সালেহউদ্দিন আহমেদ। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এই আদেশ দেন তিনি।


মন্তব্য