kalerkantho


কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়

সহকারী রেজিস্ট্রার বরখাস্ত নতুন তদন্ত কমিটি

ভালুকা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি   

৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



ময়মনসিংহের ত্রিশালে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী রেজিস্ট্রার খন্দকার এহসান হাবীবকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। গতকাল রবিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রেস বিজ্ঞপ্তি সূত্রে জানা যায়, খন্দকার এহসান হাবীব সম্প্রতি ফেসবুকে তাঁর টাইমলাইনে কিছু স্ট্যাটাস পোস্ট দেন। এ নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রতিবাদ হয় এবং কিছু অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে। গত শনিবার বিকেলে উপাচার্য ড. মোহীত উল আলমের সভাপতিত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫৫তম সিন্ডিকেট সভা হয়। সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ওই ঘটনায় (স্ট্যাটাস) খন্দকার এহসানকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। এ ছাড়া ইতিপূর্বে গঠিত পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটিতে অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের দুজন তথ্য-প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক অন্তর্ভুক্ত করে কমিটি পুনর্গঠন করা হয়। কমিটির কাছ থেকে স্বল্প সময়ের মধ্যে পাওয়া প্রতিবেদন অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ খন্দকার এহসানের বিষয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ নেবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা জানায়, খন্দকার এহসান গত ৩১ জানুয়ারি রাতে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ‘গরু’ আখ্যায়িত করে ফেসবুকে পোস্ট দেন। পরদিন এর প্রতিবাদে ও তাঁর পদত্যাগের দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন ও টায়ার জ্বালিয়ে ক্যাম্পাসের সড়ক অবরোধ করে আন্দোলনে নামে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। একপর্যায়ে তারা বিক্ষোভ মিছিল করে একই দাবিতে উপাচার্য বরাবর স্মারকলিপি দেয় এবং দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেয়।

পরে ঘটনাটি তদন্তে জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার অধ্যাপক এ এম এম শামসুর রহমানকে সভাপতি করে পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি করা হয়। কমিটিকে পাঁচ কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দিতে বলা হয়।

৩১ জানুয়ারি খন্দকার এহসান টাইমলাইনে লিখেন, ‘বিষয়টা প্রাইভেট, পাবলিক না। বিষয়টা হলো মেধার, যোগ্যতার। আপনি পাবলিকের গরু নিবেন, নাকি প্রাইভেটের মেধা নিবেন। ’ আরেকটি স্ট্যাটাসে তিনি লিখেন, ‘পাবলিকের অনেক গরু প্রতিদিন আমি আমার বাড়ির মাঠে ঘাস খেতে দেখেছি। ’ এ স্ট্যাটাস নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলপাড় সৃষ্টি হয়।


মন্তব্য