kalerkantho


ছাত্রদল নেতাসহ গ্রেপ্তার ১৪, অস্ত্র মাদক উদ্ধার

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



গাইবান্ধা জেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক মামলার আসামি আতিক হাসান রনিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আরো তিন জেলায় বিভিন্ন অভিযোগে ১৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

উদ্ধার করা হয়েছে অস্ত্র ও মাদক।

গাইবান্ধা : গতকাল দুপুরে জেলা শহরের শাপলা মিল এলাকা থেকে গ্রেপ্তার আতিক হাসান রনি সদর উপজেলার দক্ষিণ ধানঘড়া গ্রামের আমজাদ হোসেনের ছেলে। তাঁর বিরুদ্ধে নাশকতাসহ একাধিক মামলা রয়েছে। অন্যদিকে সুন্দরগঞ্জ উপজেলার জরম নদী গ্রামে জামায়াতের কর্মী ও নাশতার মামলার আসামি বদিউজ্জামান ওরফে বদিয়াকে (৩৮) শুক্রবার রাতে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। একই উপজেলার ভাটিকাপাসিয়া গ্রামের খাজা মিয়ার বাড়ি থেকে গতকাল একটি দেশীয় পাইপ গান উদ্ধার করা হয়। এ সময় পুলিশ খাজা মিয়ার স্ত্রী আমিনা বেগমকে (৩০) আটক করে। জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ভাটিকাপাসিয়া গ্রামে খাজা মিয়ার বাড়িতে অভিযান চালানো হয়।

হবিগঞ্জ : শুক্রবার মাধবপুরের শাহজাহানপুর গ্রামে হামলায় দুই ছাত্রী আহত হয়েছে। এ ঘটনায় ওই দুই ছাত্রীর বাবা মাধবপুর থানায় মামলা করেছেন।

অভিযুক্ত মলয় চন্দকে (৩৫) শুক্রবার রাতে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। গতকাল তাঁকে আদালতে নেওয়া হয়। মলয় ওই গ্রামের মানিক চন্দের ছেলে। থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শাহ আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

নীলফামারী : এক হাজার ইয়াবা বড়িসহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটকের কথা জানিয়েছেন র‌্যাব-১৩ নীলফামারী ক্যাম্পের সদস্যরা। শুক্রবার সন্ধ্যায় পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার বোয়ালমারী গ্রামে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। আটক ব্যক্তিরা হলো পাবনার সাথিয়া উপজেলার মরিচকুড়াল গ্রামের রঞ্জু আহমেদ ও একই জেলার রতনপুর গ্রামের মাসুদ রানা। নীলফামারী ক্যাম্পের কম্পানি কমান্ডার সহকারী পুলিশ সুপার মো. শাহীন কবীর জানান, আটক ব্যক্তিদের গতকাল মাদক আইনে মামলার পর বোদা থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

রাজবাড়ী : রাজবাড়ী থানার পুলিশ জানায়, জেলা সদরের বিভিন্ন এলাকায় শুক্রবার রাতে ও গতকাল অভিযান চালিয়ে মদ, ইয়াবা, হেরোইন ও গাঁজা উদ্ধারের পাশাপাশি মাদক ব্যবসায়ীসহ সাতজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তারা হলো শফিকুল ইসলাম অপি, টুটুল মণ্ডল, সুমন মণ্ডল, রনি কর্মকার, নজরুল ইসলাম, মনোয়ার হোসেন ও রুবেল সরদার। গতকাল তাদের আদালতে সোপর্দ করা হয়।


মন্তব্য