kalerkantho


চকরিয়ায় শ্বশুরবাড়িতে দিনমজুরকে হত্যা

আতাইকুলায় বৃদ্ধ খুন কাশিয়ানীতে যুবকের লাশ

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



কক্সবাজারের চকরিয়ায় শ্বশুরবাড়িতে ডেকে নিয়ে দিনমজুরকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। পাবনার আতাইকুলায় বৃদ্ধ খুন হয়েছেন। গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে আখক্ষেতে পাওয়া গেছে যুবকের লাশ। বিস্তারিত প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে :

চকরিয়া (কক্সবাজার) : চকরিয়া উপজেলায় শ্বশুরবাড়িতে ডেকে নিয়ে দিনমজুর আবদুর রহিমকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। পারিবারিক কলহের জেরে এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে। গতকাল শনিবার দুপুরে রহিমের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনার পর থেকে তাঁর স্ত্রীসহ শ্বশুরবাড়ির লোকজন পলাতক রয়েছে। রহিম উপজেলার লোটনী গ্রামের মোক্তার আহমদ ও মনোয়ারা বেগমের ছেলে। এ ঘটনায় মনোয়ারা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এ ব্যাপারে চকরিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মাজেদুল ইসলাম জানান, রহিমের শরীরে একাধিক আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। একই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. জহিরুল ইসলাম খান বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য লাশ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পাবনা : আতাইকুলা থানার ধর্মগ্রামে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে বৃদ্ধ মোক্তার হোসেনকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। গতকাল দুপুরে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এ ঘটনায় তাঁর ছেলে বাদী হয়ে আটজনকে আসামি করে থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন। আতাইকুলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাক জানান, জমি নিয়ে ধর্মগ্রামের মোক্তার আলী শেখের সঙ্গে তাঁর ভাতিজাদের বেশ কিছুদিন ধরে বিরোধ চলছিল। শুক্রবার দুপুরে এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে একটি সালিসি বৈঠক বসে। একপর্যায়ে প্রতিপক্ষের লোকজন মোক্তারকে পিটিয়ে আহত করে। স্থানীয় রোকজন তাঁকে উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় পরদিন দুপুরে মোক্তার মারা যান।

গোপালগঞ্জ : কাশিয়ানী উপজেলার চাপতা গ্রামের একটি আখক্ষেত থেকে অজ্ঞাতপরিচয় যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল বিকেলে লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করে কাশিয়ানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এ কে এম আলী নুর হোসেন বলেন, ধারণা করা হচ্ছে যে দু-একদিন আগে দুর্বৃত্তরা তাঁকে শ্বাসরোধে হত্যা করে লাশ ফেলে রেখে গেছে।


মন্তব্য