kalerkantho


নেত্রকোনায় আলাদা সংঘর্ষে আহত ৩০

হাওরাঞ্চল প্রতিনিধি   

৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



নেত্রকোনার খালিয়াজুরীতে জমি ও মোহনগঞ্জে রাস্তা নিয়ে বিরোধের জের ধরে আলাদা সংঘর্ষে চার নারীসহ কমপক্ষে ৩০ জন আহত হয়েছে। এর মধ্যে আশঙ্কাজনক অবস্থায় খালিয়াজুরীর কাদিরপুর গ্রামের সুভাষ চন্দ্র সরকার, সুশীল চন্দ্র সরকার ও খগেন্দ্র চন্দ্র সরকারকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে খালিয়াজুরীর কাদিরপুর গ্রামে এবং একই দিন সন্ধ্যায় মোহনগঞ্জ উপজেলার তেথুলিয়া গ্রামে এ দুটি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, খালিয়াজুরী উপজেলা সদর ইউনিয়নের কাদিরপুর গ্রামের সুভাষ চন্দ্র সরকার ও একই গ্রামের হেমেন্দ্র চন্দ্র সরকারের মধ্যে জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছিল। এরই জের ধরে শুক্রবার দুপুরে দুই পক্ষের লোকজনের মধ্যে কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে সংঘর্ষ বাধে। ঘণ্টাব্যাপী চলা সংঘর্ষে প্রতিপক্ষের ধারালো অস্ত্র, লাঠিসোঁটা, টেঁটা ও ইটপাটকেলের আঘাতে কমপক্ষে ১৬ জন আহত হয়। এর মধ্যে আশঙ্কাজনক অবস্থায় তিনজনকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে এবং অন্যদের খালিয়াজুরী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

খালিয়াজুরী থানার ওসি মো. শওকত আলী বলেন, এলাকার পরিস্থিতি এখন শান্ত রয়েছে। তবে এখনো কোনো পক্ষই থানায় অভিযোগ নিয়ে আসেনি।

অন্যদিকে একই দিন সন্ধ্যার পর নিজ গ্রাম থেকে ডিঙ্গাপোতা হাওরে যাওয়া-আসা করার জন্য রাস্তা নির্মাণকে কেন্দ্র করে মোহনগঞ্জের তেথুলিয়া গ্রামের আবুল খায়ের ও একই গ্রামের লাট মিয়ার লোকজনের মধ্যে কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে সংঘর্ষ বাধে।

এতে ১৪ জন আহত হয়। এর মধ্যে আহত আটজনকে রাতেই মোহনগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। অন্যদের স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে মোহনগঞ্জ থানার ওসি মো. মেজবাহ উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, এখনো থানায় কেউ অভিযোগ করেনি।


মন্তব্য