kalerkantho

১ম কলাম

মামলা

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি   

৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ার বালুয়াকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. সহিদুজ্জামান জুয়েল ও তাঁর ভাই উপজেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি সাইফুল ইসলাম মন্টুর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। মামলায় আরো আসামি করা হয়েছে তাঁদের দুই সহযোগী ও অজ্ঞাতপরিচয় সাত-আটজনকে। গতকাল বৃহস্পতিবার চাঁদা দাবির অভিযোগে গজারিয়া থানায় মামলাটি করেন ওই ইউনিয়নের ছোট রায়পাড়া গ্রামের ব্যবসায়ী আব্দুস সাত্তার।

এদিকে গত বুধবার রাতে সহিদুজ্জামান জুয়েল, সাইফুল ইসলাম মন্টু এবং তাঁর অনুগত সুজন, সুমন ও বাবুর বিরুদ্ধে অশ্লীল ভাষায় হুমকি দেওয়ার অভিযোগে থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন ছোট রায়পাড়ায় অবস্থিত এএম অটো ব্রিকসের (ইটভাটা) ব্যবস্থাপক মুক্তিযোদ্ধা মো. হাফিজুর রহমান শেখ। সহিদুজ্জামান জুয়েল জেলা ছাত্রলীগের ক্রীড়া সম্পাদক।

মামলা ও ব্যবসায়ী আব্দুস সাত্তার সূত্রে জানা যায়, আব্দুস সাত্তারের কাছে কয়েক দিন ধরে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করছিলেন মামলার বিবাদীরা। গত বুধবার ব্যবসায়িক কাজে বাউশিয়া এলাকায় যাওয়ার পথে বালুয়াকান্দি মেঘনা ভিলেজের পাশে আব্দুস সাত্তার ও তাঁর সহযোগীদের থামিয়ে চেয়ারম্যান জুয়েল ও তাঁর সহযোগীরা ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে।

তবে চেয়ারম্যান জুয়েল বলেন, ‘আমাকে ব্যবসায়িক পার্টনার করার কথা দিয়ে প্রায় দুই মাস আগে আমার কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা নেন আব্দুস সাত্তার। আমাকে বিনিয়োগ করা টাকার লভ্যাংশ না দেওয়ায় আমি টাকা ফেরত চাই। এ জন্য তিনি (সাত্তার) মামলা করেছেন। ’ গজারিয়া থানার ওসি মো. হেদায়াতউল্লাহ ভূঞা মামলা ও জিডির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, মামলা তদন্তের জন্য উপপরিদর্শক (এসআই) সারোয়ার হোসেন ভূইয়াকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।


মন্তব্য