kalerkantho


বগুড়ায় ম্যাজিস্ট্রেটকে প্রত্যাহারের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া   

৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বগুড়ায় প্রাইভেট ক্লিনিকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানের প্রতিবাদে শহরের ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলোতে কর্মবিরতি পালন করেছে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। অন্যদিকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেটের হাতে প্রেসক্লাবের নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনায় ক্ষুব্ধ সাংবাদিকরা শহরে অবরোধসহ বিক্ষোভ মিছিল করেছেন। এ সময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে অবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ডা. তায়েবুর রহমান আশিকের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত শহরের কানছগাড়ি এলাকায় ফাতেমা ক্লিনিকে অভিযান চালায়। ম্যাজিস্ট্রেট বলেন, ওই ক্লিনিকে বিভিন্ন অনিয়মের প্রমাণ পাওয়া যায়। এ কারণে ক্লিনিকের মালিক মামুনুর রশিদ বাবু ও ভুয়া চিকিৎসক ফারুক হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এ খবর পেয়ে মামুনুর রশিদের বড় ভাই বগুড়া প্রেসক্লাবের নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক আরিফ রেহমান ঘটনাটি জানতে ক্লিনিকে গেলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক তাঁকে লাঞ্ছিত করেন বলে অভিযোগ করা হয়। এর প্রতিবাদে দুপুরে বগুড়ার সাংবাদিকরা শহরের সাতমাথা এলাকায় বিক্ষোভ করে। বগুড়া সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক জে এম রউফ এ সময় বলেন, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ডা. তায়েবুর রহমানকে অবিলম্বে প্রত্যাহার করা না হলে বৃহত্তর আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

এদিকে ফাতেমা ক্লিনিকে অভিযান চালানোর সময় পুলিশ ক্লিনিকের কর্মচারীদের মারধর করার প্রতিবাদে শহরের ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলোর প্রধান গেটে তালা ঝুলিয়ে কর্মবিরতি পালন করে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। বিকেল ৪টার পর কিছু প্রতিষ্ঠানে কাজ হলেও অধিকাংশ ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের প্রধান ফটকে তালা ঝুলতে দেখা গেছে।

পরে গ্রেপ্তার করা ফাতেমা ক্লিনিকের মালিক মামুনুর রশিদ বাবুকে তিন লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে ছয় মাসের জেল এবং ভুয়া চিকিৎসক ফারুক হোসেনকে দেড় লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে তিন মাসের জেল দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বগুড়া জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ডা. তায়েবুর রহমান আশিক জানান, ফাতেমা ক্লিনিকে অভিযান চালানোর সময় সাংবাদিক আরিফ রেহমান ভ্রাম্যমাণ আদালতের কাজে অযাচিত হস্তক্ষেপ ও অসৌজন্যমূলক আচরণ করেছেন।

তবে সাংবাদিক আরিফ রেহমান জানান, তিনি সেখানে গেলে অশালীন মন্তব্য করে তাঁকে আটকে রাখা হয়।


মন্তব্য