kalerkantho


ক্যাম্পাসে ক্যাম্পেইনে ‘ভালোবাসার গল্প’ শুরু

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



ভাৎলোবাসা দিবস উপলক্ষে কালের কণ্ঠ ও ক্যাপিটাল রেডিও যৌথভাবে আয়োজন করেছে ‘ভালোবাসার গল্প’ লেখা প্রতিযোগিতা। ওয়ালটনের সৌজন্যে আয়োজিত প্রতিযোগিতার ক্যাম্পেইন শুরু হয়েছে ঢাকায়।

গতকাল বুধবার ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ক্যাম্পাস দিয়ে শুরু ক্যাম্পেইনে মিলেছে ব্যাপক সাড়া। শিক্ষার্থীরা মন উজাড় করে বলেছেন ভালোবাসা সম্পর্কে নিজের অভিমত ও নিজস্ব গল্প।

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি ক্যাম্পাসে গতকাল সকাল ১১টায় কথা হয় শিক্ষার্থী মুনের সঙ্গে। মুন বলেন, ‘যাকে ভালোবাসি তার সঙ্গে বোঝাপড়াটা ভালো। সে আমাকে বিশ্বাস করে, যে বিশ্বাস সম্পর্ক টিকে থাকার জন্য খুব জরুরি। ’ শিক্ষার্থী সজল আহমেদ বলেন, ‘স্বপ্ন দেখি সুখের জীবন। আমার ভালোবাসার মানুষটিও তা-ই করে। আমার ভালোবাসার গল্পটি লিখতে চাই এবং পাঠাতে চাই এ প্রতিযোগিতায়। ’ উপমা আক্তার নামে আরেক শিক্ষার্থী বলেন, সম্পর্কের মাঝে ঝগড়া হয় আবার মীমাংসা হয়।

এভাবেই কেটে যাচ্ছে সময়। ইস্টার্ন ইউনিভার্সিটিতে গিয়ে কথা হয় শিক্ষার্থী বৃষ্টির সঙ্গে। নিজের ভালোবাসার গল্প দ্রুত লিখে পাঠানোর কথা জানান তিনি। আরেক শিক্ষার্থী অধরা বলেন, ভালোবাসার যেমন কোনো নির্দিষ্ট দিন হতে পারে না, তেমনি নির্দিষ্ট কোনো মানুষও হতে পারে না। সবার জন্য ভালোবাসা থাকা উচিত, তবে সেটা ব্যক্তিবিশেষে আলাদা হবে। ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির মোতাহের হোসেন তুষারের বক্তব্য, ভালোবাসা শুধু একটা ছেলে আর একটা মেয়ের মাঝে সীমাবদ্ধ করে রাখাটা বিরক্তিকর। মা, বাবা, সমাজ ও দেশকে ভালোবাসা অন্যতম আবেগের জায়গা।

এভাবে গতকাল সকাল থেকে রাজধানীর ধানমণ্ডিতে চারটি প্রাইভেট ইউনিভার্সিটিতে গিয়ে শিক্ষার্থীদের ভালোবাসার গল্প শুনে লেখা প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে উদ্বুদ্ধ করা হয় আয়োজকদের পক্ষ থেকে। ক্যাম্পেইন সহযোগী হিসেবে কাজ করেছেন কালের কণ্ঠ শুভসংঘের বন্ধুরা। আজ বৃহস্পতিবার তাঁরা ক্যাম্পেইনে অংশ নেবেন বনানী এলাকায়।

ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে ওয়ালটনের সৌজন্যে কালের কণ্ঠ ও ক্যাপিটাল এফএম ৯৪.৮ যৌথভাবে আয়োজন করেছে ‘ভালোবাসার গল্প প্রতিযোগিতা’। ১৮ থেকে ২৫ বছর বয়সের মধ্যে স্নাতক অথবা স্নাতকোত্তরের শিক্ষার্থীদের থাকছে এতে অংশগ্রহণ করার সুযোগ। এক হাজার শব্দে ৭ ফেব্রুয়ারির মধ্যে ই-মেইল (valobasargolpo@kalerkantho.com)- এ পাঠানো যাবে এ গল্প। কুরিয়ার বা ডাকযোগে গল্প পাঠানো যাবে কালের কণ্ঠের অফিসের ঠিকানায়।


মন্তব্য