kalerkantho

25th march banner

প্রোগ্রাম কমিটির বৈঠক শুরু

সার্কে পাকিস্তানি মহাসচিব নিয়োগ নিয়ে জটিলতা

কূটনৈতিক প্রতিবেদক   

২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



সার্কে পাকিস্তানি মহাসচিব নিয়োগ নিয়ে জটিলতা

দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থার (সার্ক) নতুন মহাসচিব হিসেবে পাকিস্তানের কূটনীতিক আমজাদ হোসেন সিয়ালের নিয়োগপ্রক্রিয়া নিয়ে জটিলতা দেখা দিয়েছে। বর্তমান মহাসচিব অর্জুন বাহাদুর থাপার মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি। এরপর আগামী ১ মার্চ থেকে নতুন মহাসচিব হিসেবে আমজাদ হোসেনের দায়িত্ব নেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এখন পর্যন্ত এ প্রক্রিয়ার আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়নি।

পাকিস্তানের ডন পত্রিকায় গতকাল বুধবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারত গত মাসে নেপালে সার্ক সচিবালয়কে পাঠানো এক কূটনৈতিক বার্তায় নতুন মহাসচিব নিয়োগে যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ করার আহ্বান জানিয়েছে। নেপালের পোখারায় গত বছর মার্চ মাসে সার্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বৈঠকে পাকিস্তান তার দেশের জ্যেষ্ঠ কূটনীতিক আমজাদ হোসেনকে মহাসচিব হিসেবে নিয়োগের প্রস্তাব করে। বৈঠকে অন্য সদস্য দেশগুলো ওই প্রস্তাবকে স্বাগত জানায়।

কিন্তু সার্ক সচিবালয় প্রতিষ্ঠার বিষয়ে সদস্য দেশগুলোর মধ্যে স্বাক্ষরিত সমঝোতা স্মারকের (এমওইউ) পঞ্চম অনুচ্ছেদ অনুযায়ী ওই নিয়োগপ্রক্রিয়া সার্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে অনুমোদিত হতে হবে। গত বছরের নভেম্বরে পাকিস্তানে সার্ক শীর্ষ সম্মেলনের আগে পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের ওই বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সার্ক শীর্ষ সম্মেলন স্থগিত হওয়ায় ওই বৈঠকও আর হয়নি।

পাকিস্তানি কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে ডন পত্রিকায় আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে, ভারত আপত্তি তোলায়  দীর্ঘ মেয়াদে সার্ক মহাসচিবের পদটি শূন্য থাকতে পারে। যথাযথ প্রক্রিয়ায় ওই নিয়োগ সম্পন্ন করতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক হতে হবে। বৈঠকটি পাকিস্তানে হওয়ার কথা। পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের সেই বৈঠক ও সার্কের শীর্ষ সম্মেলন পাকিস্তানে কবে হবে তা এখনো স্পষ্ট নয়।

এদিকে সার্ক সচিবালয়ের বাজেট এবং এ বছরের কর্মসূচি চূড়ান্ত করে সার্কের সদস্য দেশগুলোর যুগ্ম সচিব পর্যায়ের কর্মকর্তারা গতকাল থেকে কাঠমাণ্ডুতে দুই দিনের বৈঠক শুরু করেছেন। এটি সার্কের প্রোগ্রাম কমিটির ৫৩তম বৈঠক। গত নভেম্বরে পাকিস্তানে নির্ধারিত সার্ক শীর্ষ সম্মেলন স্থগিত হওয়ার পর এ ধরনের বৈঠক এটিই প্রথম।

ভারতে গত বছর জঙ্গি হামলায় মদদ দেওয়ার অভিযোগে নয়াদিল্লি পাকিস্তানে সার্ক শীর্ষ সম্মেলনে অংশ নিতে অপারগতা জানায়। পাকিস্তানের সঙ্গে বাংলাদেশেরও কূটনৈতিক সম্পর্কে টানাপড়েন চলছিল। এর পরিপ্রেক্ষিতে বাংলাদেশ, ভুটান, আফগানিস্তান ও শ্রীলঙ্কা ওই সম্মেলনে অংশ নিতে অপারগতা জানালে ইসলামাবাদ তা স্থগিত করতে বাধ্য হয়।

কূটনৈতিক সূত্রগুলো জানায়, সার্ক শীর্ষ সম্মেলন স্থগিত হওয়ার পর এবারের বৈঠকে সদস্য আটটি দেশের কর্মকর্তারা সার্ককে এগিয়ে নেওয়ার বিষয়ে আলোচনা করবেন। সেখানে আঞ্চলিক যোগাযোগ বৃদ্ধিতে প্রস্তাবিত বিভিন্ন উদ্যোগের অগ্রগতি নিয়েও আলোচনা হতে পারে।


মন্তব্য