kalerkantho


পাকুন্দিয়ায় জঙ্গলে মিলল নবজাতকের গলিত লাশ

দুই স্থানে ছাত্রলীগ নেতা ও ব্যবসায়ীর মরদেহ

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় জঙ্গলে নবজাতককের গলিত লাশ পাওয়া গেছে। অন্যদিকে ঝালকাঠির কাঁঠালিয়ায় ছাত্রলীগ নেতা ও পটুয়াখালীতে স্বর্ণ ব্যবসায়ীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বিস্তারিত প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে :

কিশোরগঞ্জ : পাকুন্দিয়া উপজেলায় আমিরুল নামে দুই মাস বয়সী এক নবজাতকের গলিত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত মঙ্গলবার রাতে উপজেলার মীরেরটেক এলাকায় একটি জঙ্গল থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়। এর ১০ দিন আগে শিশুটির মা রহিমা বেগমের ক্ষতবিক্ষত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে পাকুন্দিয়া থানার ওসি হাসান আল মামুন জানান, শিশুটির লাশের ময়নাতদন্ত গতকাল বুধবার জেলা হাসপাতালে করা হয়েছে। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে ইতিমধ্যে এজাহারভুক্ত একজন ও সন্দেহভাজন একজনকে আটক করা হয়েছে। জানা যায়, উপজেলার পাবদা গ্রামের মো. আলীর (মৃত) মানসিক প্রতিবন্ধী মেয়ে রহিমা বেগমের সরলতার সুযোগ নিয়ে তাঁর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক গড়ে তোলে একই গ্রামের সোহরাবের ছেলে নজরুল ইসলাম। নজরুল কিশোরগঞ্জ সরকারি গুরুদয়াল কলেজের অনার্সের ছাত্র। একপর্যায়ে রহিমা অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন এবং দুই মাস আগে একটি ছেলেসন্তান জন্ম দেন। এ অবস্থায় রহিমার আত্মীয়রা বিয়ে করার জন্য নজরুলকে চাপ দেয় এবং ১০ জানুয়ারি সে রহিমাকে বিয়ে করে বাড়িতে নিয়ে আসে।

পরে ১৩ জানুয়ারি বেড়ানোর কথা বলে ছেলে ও স্ত্রীকে নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয় সে। কিন্তু তিন দিন পর নজরুল বাড়ি ফিরে এলেও তার স্ত্রী-ছেলের কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না।

ঝালকাঠি : কাঁঠালিয়া উপজেলার আমুয়া উত্তরপার গ্রামে নিজ বাড়ি থেকে ছাত্রলীগ নেতা জুলহাস হাওলাদারের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। গতকাল বুধবার সকালে তাঁর লাশ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। জুলহাস আমুয়া ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি ছিল। তিনি আমুয়া ডিগ্রি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণিতে পড়তেন।

পটুয়াখালী : শহরের পুরনো আদালত (পরিত্যক্ত) ভবনের পাশ থেকে গতকাল বুধবার সকালে স্বর্ণ ব্যবসায়ী নারায়ণ চন্দ্র কর্মকারের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তাঁর কপালে ও গালে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। লাশের ময়নাতদন্তের জন্য পটুয়াখালী হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। নারায়ণ চন্দ্র শহরের স্বর্ণপট্টি এলাকার ‘মনিষা স্বর্ণ নিকেতন’-এর স্বত্ব্বাধিকারী ছিলেন। তাঁর বোন উষা রানী কর্মকার অভিযোগ করে বলেন, ‘আমার ভাইকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। ’


মন্তব্য