kalerkantho


বাবাকে হত্যার দায়ে ময়মনসিংহে ছেলের যাবজ্জীবন

নিজস্ব প্রতিবেদক, ময়মনসিংহ   

১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



ময়মনসিংহে বাবাকে হত্যার দায়ে ছেলেকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার দুপুরে ময়মনসিংহের অতিরিক্ত প্রথম জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক শাহরিয়ার কবীর এ রায় দেন।

আদালত সূত্র জানায়, ২০১৩ সালের ৪ জানুয়ারি জমি নিয়ে বিরোধে ফুলপুরের গুস্তেরগাঁও গ্রামের ইমান আলীকে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে হত্যা করে তাঁর ছেলে আনোয়ার। ইমান আলী বাড়ির পাশের মসজিদের জন্য ৭ শতাংশ জমি দান করলে ছেলে আনোয়ার তা মেনে নিতে পারেনি। এ ঘটনা নিয়ে বাবা-ছেলের সম্পর্কের অবনতি ঘটে। এরই জের ধরে ইমান আলী খুন হন। এ ঘটনায় ইমান আলীর আরেক ছেলে জবান আলী ময়মনসিংহের আদালতে একটি হত্যা মামলা করেন। মামলায় একমাত্র আসামি ছিলেন আনোয়ার। পুলিশ তদন্ত শেষে এ মামলায় অভিযোগপত্র দেয়। শুনানি ও ১১ জনের স্বাক্ষর শেষে মঙ্গলবার এ মামলায় রায় দেন বিজ্ঞ আদালত। মামলায় অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আনোয়ারকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়। মামলার আসামি পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম চুন্নু রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

চাঁপাইনবাবগঞ্জে অস্ত্র মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন

এদিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, চাঁপাইনবাবগঞ্জে অস্ত্র আইনে দুলাল ইসলাম নামের এক যুবককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই আইনের আরেকটি ধারায় দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় তাকে ১০ বছর সশ্রম কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল-১-এর বিচারক এবং জেলা ও দায়রা জজ এনামুল বারী আসামির উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন। এ সময় অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় আরেক আসামি মিস্টারকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়। দুলাল শিবগঞ্জের বিনোদপুর সাবাড়িতলা গ্রামের আনারুল ইসলামের ছেলে।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা যায়, ২০১৩ সালের ২২ জুলাই র‌্যাব গোমস্তাপুরের চৌডালা ফেরিঘাট এলাকায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে দুটি বিদেশি পিস্তল, ১১ রাউন্ড গুলি, চারটি ম্যাগাজিনসহ দুলালকে আটক করে। এ ঘটনায় ওই দিনই র‌্যাবের ডিএডি কামাল হোসেন বাদী হয়ে অস্ত্র আইনে গোমস্তাপুর থানায় তিনজনকে আসামি করে একটি মামলা করেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) নুর মোহাম্মদ একই বছরের ৩০ অক্টোবর আদালতে দুজনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দাখিল করেন। দীর্ঘ শুনানি শেষে আদালত গতকাল আসামি দুলালকে উল্লিখিত সাজা দেন। এ সময় আরেক আসামি বিনোদপুর চামাটোলা গ্রামের জিল্লুর রহমানের ছেলে মিস্টারকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়।


মন্তব্য