kalerkantho

শনিবার । ২১ জানুয়ারি ২০১৭ । ৮ মাঘ ১৪২৩। ২২ রবিউস সানি ১৪৩৮।


বাংলাদেশে ঢুকেও প্রাণে বাঁচল না ভারতীয় হরিণটি

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৯ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



ভারতীয় শিকারিদের তাড়া খেয়ে প্রাণ বাঁচাতে সীমানা পেরিয়ে বাংলাদেশে ঢুকে পড়েছিল একটি হরিণ। তবু শেষ রক্ষা হয়নি। বিজিবির কথিত সোর্সসহ কয়েকজন নিরীহ হরিণটিকে ধরে জবাই করে খেয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল মঙ্গলবার সকালে ধর্মপাশা উপজেলার দক্ষিণ বংশিকুণ্ডা ইউনিয়নের মহেশখলা এলাকায়। তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন কথিত সোর্স হাবুল মিয়া। হরিণটি তাহলে কোথায়—এ প্রশ্নেরও কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি তিনি।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, গতকাল ভারতীয় শিকারিদের তাড়া খেয়ে একটি সুন্দর হরিণ সীমানা পেরিয়ে মহেশখলা নদী সাঁতরে মহেশখলা এলাকায় চলে আসে। এ সময় স্থানীয় কয়েকজন হরিণটিকে আটকের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। তবে একই এলাকার মাছ ব্যবসায়ী নাজির মিয়া হরিণটিকে দেখে আটকে রাখেন। খবর পেয়ে বিজিবির কথিত সোর্স হাবুল মিয়াসহ কয়েকজন হরিণটিকে নিয়ে যান। পরে হরিণটি জবাই করে মাংস ভাগাভাগি করে নেন তাঁরা।

মাছ ব্যবাসায়ী নাজির মিয়া বলেন, ‘আমি হরিণটি আটক করার পর হাবুল মিয়া হরিণটি বিজিবির কাছে দেওয়ার কথা বলে নিয়ে যান। পরে শুনেছি, হরিণটি জবাই করা হয়েছে। ’ ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা সবুজ মিয়া বলেন, ‘আমরা খবর পেয়েছি মাছ ব্যবসায়ীর কাছ থেকে হরিণটি নিয়ে যাওয়ার পর জবাই করে মাংস বণ্টন করে নেওয়া হয়েছে। ’

তবে হরিণটি জবাইয়ের অভিযোগ অস্বীকার করে হাবুল মিয়া জানান, তিনি এ ঘটনায় জড়িত নন। এ ব্যাপারে মাটিয়াবন্দ ক্যাম্পের কমান্ডার নায়ক সুবেদার আলমগীর কবিরের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।


মন্তব্য