kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


আসামির জামিন না দেওয়ার জের

নারায়ণগঞ্জে বিচারকের সঙ্গে আইনজীবীর তর্ক, উত্তেজনা

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি   

১৮ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



আদালতে আসামির পক্ষে জামিন আবেদন করে তা না দেওয়ার ঘটনায় বিচারকের সঙ্গে তর্কে জড়িয়েছেন আওয়ামী লীগের এক আইনজীবী। গতকাল সোমবার দুপুরে এ ঘটনায় আদালতের ওই আইনজীবীকে গ্রেপ্তারের আদেশ দেওয়া নিয়ে আদালতে তুলকালাম কাণ্ড ঘটেছে।

পরবর্তী সময়ে আইনজীবী সমিতির নেতারা গিয়ে ওই আইনজীবীকে মীমাংসার মাধ্যমে ছাড়িয়ে নেন। জানা গেছে, ওই আইনজীবী নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির লাইব্রেরিবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আল মামুন ভুইয়া। তিনি গত বছর আওয়ামী লীগের সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ প্যানেল থেকে ওই পদে নির্বাচিত হন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, গতকাল সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ইসরাত জাহানের আদালতে একটি মামলায় আসামির জামিন আবেদন করেন অ্যাডভোকেট আল মামুন ভুইয়াসহ কয়েকজন আইনজীবী। আদালত ওই মামলায় আসামির জামিন আবেদন নামঞ্জুর করেন। এ নিয়ে অ্যাডভোকেট আল মামুন ভুইয়া আদালতের এজলাসে বিচারকের সঙ্গে বাগিবতণ্ডা জুড়ে দেন। বিচারকের সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়েন অ্যাডভোকেট আল মামুন ভুইয়া। ওই ঘটনায় তাত্ক্ষণিক আদালত অ্যাডভোকেট আল মামুন ভুইয়াকে গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশকে আদেশ দেন। এ ঘটনা আদালতে ছড়িয়ে পড়লে আইনজীবীরা ওই আদালতে অবস্থান নেন। তবে আইনজীবীকে গ্রেপ্তারের আদেশ দিয়েই আদালতের এজলাস থেকে বিচারক নেমে যান। পরবর্তী সময়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট হাসান ফেরদৌস জুয়েলসহ আইনজীবী নেতারা গিয়ে বিচারকের সঙ্গে কথা বলেন। উভয়ের মধ্যে ভুল-বোঝাবুঝি হয়েছে মর্মে ওই আইনজীবীকে ছাড়িয়ে নিয়ে আসেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে অ্যাডভোকেট আল মামুন ভুইয়া বলেন, ‘একটি মামলার জামিন আবেদনের বিষয়ে বিচারকের সঙ্গে কথাকাটাকাটি হয়েছে মাত্র। এ ছাড়া আর কিছু হয়নি। কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। ’

এ ব্যাপারে পিপি ওয়াজেদ আলী খোকন জানান, বার ও বেঞ্চ একটি পরিবারের মতো। এখানে ভুল-বোঝাবুঝি কাম্য নয়। তবে সেই ভুল-বোঝাবুঝির তাত্ক্ষণিক সমাধান হওয়ায় তিনি সন্তোষ প্রকাশ করেন।


মন্তব্য