kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বড়লেখায় ভাতিজার হাতে চাচা খুন

চাটখিলে ডোবায় মিলল নিখোঁজ গৃহবধূর লাশ

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

১৫ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



মৌলভীবাজারের বড়লেখায় ভাতিজার ছুরিকাঘাতে খুন হয়েছেন এক ব্যক্তি। এ ছাড়া নোয়াখালীর চাটখিলে নিখোঁজ এক গৃহবধূর লাশ পাওয়া গেছে ডোবায়।

মৌলভীবাজার : বড়লেখা উপজেলায় ভাতিজার ছুরিকাঘাতে খুন হয়েছেন আসুক আহমদ নামের এক ব্যক্তি। গতকাল শুক্রবার দুপুরে উপজেলার কেচরিগুল গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে সন্ধ্যা পর্যন্ত থানায় কোনো মামলা হয়নি। ঘটনার পর থেকে ঘাতক ভাতিজা সুমন আহমদ পলাতক রয়েছে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কেচরিগুল গ্রামের মইন উদ্দিনের দুই ছেলে হেলাল আহমদ ও আসুক আহমদের মধ্যে জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছে। সপ্তাহ দুয়েক আগে দুই ভাইয়ের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদ হয়। বিষয়টি গ্রাম্য সালিসের মাধ্যমে সমাধানের চেষ্টা চলছিল। এরই মধ্যে গতকাল দুপুরে আসুক বাড়ির সামনে সিএনজিচালিত অটোরিকশা ধোয়ামোছা করছিলেন। হঠাৎ বড় ভাই হেলালের ছেলে সুমন আহমদ পেছন থেকে এসে তাঁর মাথা, পিঠসহ শরীরের অন্তত ছয়টি স্থানে ছুরিকাঘাত করে। এ সময় আসুক আত্মরক্ষার্থে পাশের জমির কাদামাটিতে পড়ে যান। পরে আশপাশের লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। ঘটনার পর পরই পালিয়ে গেছে সুমন। এ ব্যাপারে বড়লেখা থানার ওসি মুহাম্মদ সহিদুর রহমান বলেন, ‘আসুক তাঁর বড় ভাই হেলালকে ১০-১৫ দিন আগে মারধর করেছিল। সেই ক্ষোভ থেকে হেলালের ছেলে সুমন চাচা আসুককে ছুরিকাঘাত করে মারে। ’

নোয়াখালী : চাটখিল উপজেলায় নিখোঁজের দুই দিন পর ডোবায় পাওয়া গেছে জেসমিন আক্তার নামের এক গৃহবধূর লাশ। গতকাল শুক্রবার দুপুরে উপজেলার শিবরামপুর গ্রামের ওই ডোবা থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। এ ব্যাপারে সাহাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গোলাম হায়দার কাজল জানান, তিন বছর আগে উপজেলার রামনারায়ণ গ্রামের আলমগীরের সঙ্গে শিবরামপুর গ্রামের জেসমিনের বিয়ে হয়। পরে তাঁদের ঘরে একটি ছেলে জন্ম নেয়। এর কয়েক মাস পর ছেলেটি মারা যায়। এ ঘটনায় জেসমিন মানসিকভাবে কিছুটা অসুস্থ হয়ে পড়েন। চাকরির সুবাদে তাঁর স্বামী ঢাকায় থাকেন। ফলে বাবার বাড়িতেই থাকতেন ওই গৃহবধূ। গত বুধবার হঠাৎ তিনি নিখোঁজ হন। আত্মীয়স্বজনের বাড়িতে খোঁজাখুঁজি করে না পেয়ে পরদিন বৃহস্পতিবার মেয়ের সন্ধানে এলাকায় মাইকিং করেন নুরুল আমিন। পরে গতকাল সকালে বাড়ির পাশে ওই ডোবায় জেসমিনের লাশ ভাসতে দেখে স্থানীয় লোকজন।


মন্তব্য