kalerkantho


দুই স্কুল ছাত্রীসহ চারজনের অপমৃত্যু

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

১২ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ ও পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় দুই স্কুল ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। এ ছাড়া ফরিদপুরের সালথা ও কুড়িগ্রামের রৌমারীতে আরো দুজনের অস্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে।

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) : গোয়ালন্দ উপজেলায় গতকাল মঙ্গলবার ফাঁস দিয়ে পাপিয়া আক্তার নামে এক স্কুল ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। পাপিয়া উপজেলার মজিদ শেখেরপাড়া গ্রামের সিদ্দিক বিশ্বাসের মেয়ে ও কেকেএস শিশু বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী। এ ব্যাপারে থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

ফরিদপুর : সালথা উপজেলায় বিদ্যুত্স্পৃষ্ট হয়ে কাওসার ফকির নামের এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার কাগদী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। কাওসার ওই গ্রামের মালেক ফকিরের (মৃত) ছেলে। এলাকাবাসী জানায়, গতকাল দুপুরে বাড়ির পাশের বাঁশঝাড় থেকে কাওসার ফকির বাঁশ কাটছিলেন। হঠাৎ একটি কাটা বাঁশ পাশের বিদ্যুতের তারে লেগে ছিঁড়ে পড়ে।

পিরোজপুর (আঞ্চলিক) : মঠবাড়িয়া উপজেলায় কীটনাশক পানে আইরিন আক্তার নামের এক স্কুল ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। গত সোমবার রাতে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন সে মারা যায়। এ ব্যাপারে থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। আইরিন উপজেলার বেতমোড় গ্রামের মো. নাছির হাওলাদারের মেয়ে। সে বেতমোড় আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী ছিল। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার বিকেলে মোবাইল ফোনে কথা বলা নিয়ে আইরিনকে তার মা বকাঝকা করেন। এতে সে অভিমান করে নিজ ঘরের দরজা বন্ধ করে কীটনাশক পান করে।

রৌমারী (কুড়িগ্রাম) : রৌমারী উপজেলায় আনোয়ারা বেগম নামের এক বৃদ্ধা বিষপান করে আত্মহত্যা করেছেন। ছেলের বউয়ের সঙ্গে ঝগড়ার পর অভিমানে তিনি বিষপান করেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত সোমবার রাতে উপজেলার বাওয়ার গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আনোয়ারা ওই গ্রামের আব্দুর রহিমের (মৃত) স্ত্রী।


মন্তব্য