kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


শিমুলিয়া ঘাটকে চাঁদাবাজমুক্ত ঘোষণা

আছে অবৈধ ৩২৭ দোকান

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি   

১১ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাটকে চাঁদাবাজমুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। এ ছাড়া পালিয়ে থাকা চাঁদাবাজদের ধরতে লৌহজং উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ওসমান গনি তালুকদারকে প্রধান করে ১৭ সদস্যের একটি মনিটরিং কমিটি গঠন করা হয়েছে।

সোমবার দুপুরে শিমুলিয়া ঘাটে বিআইডাব্লিউটিএর সভাকক্ষে আইনশৃঙ্খলা কমিটির বিশেষ সভায় এ ঘোষণা দেওয়া হয়।

লৌহজং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ খালেকুজ্জামানের সভাপতিত্বে সভায় স্থানীয় সংসদ সদস্য অধ্যাপিকা সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি, জেলা প্রশাসক সায়লা ফারজানা, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল হাসানসহ বিআইডাব্লিউটিএ, বিআইডাব্লিউটিসি, বাস মালিক সমিতি, ট্রাক মালিক সমিতি, ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়ন, বাস শ্রমিক ইউনিয়ন, লঞ্চ মালিক সমিতির নেতারাসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা এবং স্টেক হোল্ডাররা উপস্থিত ছিলেন। এ সময় শিমুলিয়া ঘাট পুরোপুরি চাঁদাবাজমুক্ত থাকবে বলে সর্বসম্মতিক্রমে ঘোষণা দেওয়া হয়। চাঁদাবাজির সঙ্গে কারো কোনো সংশ্লিষ্টতা থাকলে তাকে আইনের আওতায় আনা হবে বলেও ঘোষণা দেওয়া হয়।

সভায় জেলা প্রশাসক সায়লা ফারজানা বলেন, শিমুলিয়া ঘাটে যানবাহনগুলো চার স্তরে ভাগ করে নিয়ম মেনে পারাপার করতে হবে। সিরিয়ালের নামে কোনো ধরনের অতিরিক্ত অর্থ আদায় করা যাবে না। সিরিয়াল যথা নিয়মে করতে হবে। সরকারি বিধি অনুযায়ী স্লিপ ছাড়া কোনো টাকা গ্রহণ করলেই কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এদিকে একই সভা থেকে শিমুলিয়া ঘাটে অবৈধভাবে গড়ে উঠা ৩২৭টি দোকান উচ্ছেদে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। লৌহজং উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) এস এম শাহিনকে কমিটির প্রধান করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ শিকদার বলেন, বিআইডাব্লিউএর ছত্রচ্ছায়ায় দোকানগুলো গড়ে উঠেছে। এসব দোকান থেকে প্রতিদিন অন্তত চার হাজার টাকা ভাড়া আদায় করে পকেটে ভরছে কয়েকজন ব্যক্তি।


মন্তব্য