kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথ

ঘাটে আটকা তিন শতাধিক ট্রাক

গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি   

৭ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



ফেরি সংকটের পাশাপাশি তীব্র স্রোতের কারণে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথে পারাপার ব্যাহত হচ্ছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দৌলতদিয়া ঘাটে আটকা পড়েছে পণ্যবাহী তিন শতাধিক ট্রাক।

এতে টার্মিনালের বিশাল পার্কিং ইয়ার্ড উপচে ফেরিঘাটের জিরো পয়েন্ট থেকে দৌলতদিয়া-খুলনা মহাসড়কের ক্যানেলঘাট পর্যন্ত আড়াই কিলোমিটার রাস্তায় ট্রাকের দীর্ঘ সারির সৃষ্টি হয়।  

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন সংস্থার (বিআইডাব্লিউটিসি) দৌলতদিয়া ঘাট অফিস সূত্রে জানা যায়, দৌলতদিয়ায় চারটি ঘাটের সব সচল হলেও গুরুত্বপূর্ণ এই নৌপথে ফেরি সংকট লেগেই আছে। নৌপথের বহরে ৯টি রো রো (বড়), তিনটি কে-টাইপ (মাঝারি) ও ছয়টি ইউটিলিটি (ছোট) ফেরি রয়েছে। এর মধ্যে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে মাধবীলতা, হাসনাহেনা, চন্দ্রমল্লিকা  ও কাবেরী নামের চারটি ফেরি বিকল হয়ে আছে। মেরামতের জন্য ওই ফেরিগুলো পাটুরিয়ার ভাসমান কারখানা মধুমতীতে রাখা হয়েছে। শাহ মখদুম নামের অন্য একটি রো রো ফেরি গত মঙ্গলবার নারায়ণগঞ্জ ডকইয়ার্ডে পাঠানো হয়েছে। এতে নৌপথে ফেরির সংকট সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে পদ্মায় স্রোতের তীব্রতা এখনো কমেনি। তাই চলাচলকারী ফেরিগুলো দুই কিলোমিটার ভাটিপথ ঘুরে চলাচল করছে। এতে সময় বেশি লেগে যাওয়ায় ফেরির ট্রিপ সংখ্যাও অনেক কমে গেছে। স্রোতের কারণে দীর্ঘদিন ধরে দৌলতদিয়ার ২ নম্বর ইউটিলিটি ফেরিঘাটে কোনো ইউটিলিটি  (ছোট) ফেরি ভিড়তে পারছে না। তবে কুমারী ও কপোতী নামের দুটি কে-টাইপ (মাঝারি) ফেরি ওই ২ নম্বর ঘাটে ভিড়তে পারছে। গত মঙ্গলবার মধ্যরাতে পাটুরিয়া থেকে দুটি বাস, তিনটি ট্রাক ও ছয়টি ছোট গাড়ি নিয়ে চন্দ্রমল্লিকা নামের একটি ইউটিলিটি ফেরি দৌলতদিয়া ঘাটের উদ্দেশে ছেড়ে যায়। পরে দৌলতদিয়ার ৩ নম্বর ঘাটে পৌঁছে ফেরিটি পন্টুনের ডাউন পকেটে ভিড়তে গিয়ে হঠাৎ ওই ফেরির ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়। এতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেরিটি স্রোতের তোড়ে ভেসে এক কিলোমিটার ভাটিতে চলে আসে। ফেরিটির মাস্টার সেখানে বিকল ফেরিটি নোঙর করে রাখেন। টানা পাঁচ ঘণ্টা মাঝ নদীতে আটকে থাকার পর গত বুধবার সকাল সাড়ে ৬টায় উদ্ধারকারী আইটি-৩৮৯ জাহাজ গিয়ে ফেরি চন্দ্রমল্লিকাকে উদ্ধার করে ফের পাটুরিয়া ঘাটে নিয়ে যায়।

বিআইডাব্লিউটিসির দৌলতদিয়া ঘাট ব্যবস্থাপক মো. শফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘এই নৌপথে চলাচলকারী ফেরিগুলো অনেক পুরনো। তাই ফেরিগুলো ঘন ঘন বিকল হচ্ছে। পাশাপাশি সুকানি (দিকনির্দেশক) সমস্যার কারণে আড়াই মাস ধরে বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান ও বীরশ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান নামের দুটি রো রো (বড়) ফেরি রাতের বেলা চলাচল করতে পারছে না। ’ তবে যাত্রী দুর্ভোগ কমাতে বাস, মাইক্রোবাস ও প্রাইভেট কারগুলো অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পারাপার করায় দৌলতদিয়া ঘাটে পণ্যবাহী ট্রাকগুলো আটকা পড়েছে।


মন্তব্য