kalerkantho

শুক্রবার । ২ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


চকরিয়ায় আ. লীগ নেতাকে হত্যা

বুড়িগঙ্গায় অজ্ঞাতপরিচয় দুজনের লাশ

চকরিয়া (কক্সবাজার) ও কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিনিধি   

৫ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



চকরিয়া পৌরসভায় দুর্বৃত্তদের বিরুদ্ধে আবদুল মজিদ ওরফে মজিদ বলি নামের এক আওয়ামী লীগ নেতাকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল মঙ্গলবার ভোরে এক প্রবাসীর জমি দখলের খবর পেয়ে বাধা দিতে গেলে দুর্বৃত্তরা তাঁকে পিটিয়ে ও শ্বাসরোধে হত্যার পর লাশ মাতামুহুরী ব্রিজের নিচে ফেলে দেয়।

খবর পেয়ে পরিবারের সদস্যরা লাশটি উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। পরে পুলিশ লাশের ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠায়। আবদুল মজিদ পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ছিলেন। তিনি একই ওয়ার্ডের কাহারিয়া ঘোনার মাস্টার আবদুল হক পাড়ার বাসিন্দা। পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, একই এলাকার দুবাইপ্রবাসী নুর হোসেনের জমি দেখাশোনা করতেন আবদুল মজিদ। প্রতিদিনের মতো গতকাল ভোরেও ফজরের নামাজ পড়তে বাড়ির পাশের মসজিদে যান তিনি। নামাজ শেষে মোবাইল ফোনে তিনি খবর পান ওই প্রবাসীর জমি কে বা কারা দখল করেছে। আবদুল মজিদ ঘটনাস্থলে গিয়ে বাধা দিলে তাঁকে পিটিয়ে ও শ্বাসরোধে হত্যা করে লাশ ওই ব্রিজের নিচে ফেলে দেয় দুর্বৃত্তরা।

এদিকে বুড়িগঙ্গা নদী থেকে অজ্ঞাতপরিচয় দুজনের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার লাশ দুটি উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ মিটফোর্ড হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। দুজনই লঞ্চ বা জাহাজ থেকে নদীতে পড়ে প্রপেলারের (পাখা) আঘাতে মারা গেছেন বলে ধারণা করছে পুলিশ। এ ব্যাপারে হাসনাবাদ নৌ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ শামসুল আলম জানান, গতকাল দুপুর ২টার দিকে ওয়াইজঘাটের কাছে বুড়িগঙ্গা নদী থেকে অজ্ঞাতপরিচয় একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়। তাঁর পায়ে ও কোমড়ে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এ ছাড়া বিকেল ৩টার দিকে পোস্তগোলা গোসাইবাড়ীর ঘাট এলাকার সামনে বুড়িগঙ্গা থেকে অজ্ঞাতপরিচয় আরেকজনের লাশ উদ্ধার করা হয়। তাঁর পায়ে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এ ঘটনায় দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় আলাদা দুটি মামলার প্রস্তুতি চলছে।


মন্তব্য