kalerkantho

বুধবার । ৭ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


নারায়ণগঞ্জ

ডাকাত-পুলিশ গোলাগুলি উপপরিদর্শক গুলিবিদ্ধ

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি   

২ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



নারায়ণগঞ্জে সংঘবদ্ধ ডাকাতদের সঙ্গে পুলিশের গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। গুলিবিদ্ধ হয়েছেন গোয়েন্দা পুলিশের এক উপপরিদর্শক (এসআই)।

এ সময় ডাকাত সর্দার দেলোয়ার হোসেন ওরফে মাস্টার দেলু পালিয়ে গেলেও তার স্ত্রীসহ চারজনকে আটক করা হয়েছে। উদ্ধার করা হয়েছে ধারালো অস্ত্র ও ফেনসিডিল। শুক্রবার রাত ও গতকাল শনিবার সকালে এ ঘটনা ঘটে। দুপুরে নারায়ণগঞ্জ জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ তাদের কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানায়।

গুলিবিদ্ধ উপপরিদর্শক মনিরুজ্জামান খানপুরে অবস্থিত নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

নারায়ণগঞ্জ ডিবির ওসি মাহমুদুল ইসলাম জানান, মাদক বেচাকেনা হচ্ছে এমন খবর পেয়ে শুক্রবার গভীর রাতে শহরের ২৩ নম্বর খানপুর প্রধান সড়কে এম এ রশিদের বাসার চতুর্থ তলায় একটি ফ্ল্যাটে অভিযান চালায় গোয়েন্দা পুলিশ। এ সময় ২৬০ বোতল ফেনসিডিলসহ দেলোয়ার হোসেন দেলু ওরফে মাস্টার দেলুর স্ত্রী লাকী আক্তার (৩০), তার মামা মোবারক (৪০), দুই সহযোগী সুজন (৩৪) ও হারুনকে (৩৫) আটক করা হয়। পুলিশকে মাদক কেনাবেচার অভিযানের তথ্য বিল্লাল নামের সহযোগী ফাঁস করেছে—এমন অভিযোগ তুলে খানপুর সর্দারপাড়ায় তার (বিল্লাল) বাড়িতে গতকাল ভোর ৬টার দিকে হামলা চালায় দেলু ও তার লোকজন। তখন পাঁচজন উপপরিদর্শক মফিজুল ইসলাম, মনিরুজ্জামান, মাজহারুল ইসলাম, মো. সেলিম ও আসাদুজ্জামান ঘটনাস্থলে গেলে তাঁদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে দেলু বাহিনীর লোকজন। দুই পক্ষের গোলাগুলির একপর্যায়ে গুলিবিদ্ধ হন মনিরুজ্জামান, পালিয়ে যায় দেলু। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয় একটি চায়নিজ কুড়াল ও দুটি ছুরি।

ওসি জানান, ডাকাতরা ১০-১২ রাউন্ড গুলি ছুড়েছিল। দেলুকে ধরতে অভিযান চলছে। এ ঘটনায় পুলিশের ওপর হামলা ও মাদক আইনে দুটি মামলা হবে।

সূত্র জানায়, নারায়ণগঞ্জের আলোচিত ডাকাত সর্দারদের একজন দেলু। অস্ত্র চালানো ও ডাকাতিতে পারদর্শী হওয়ায় সে ‘মাস্টার দেলু’ হিসেবে পরিচিত। তার বিরুদ্ধে দুই ডজন মামলা রয়েছে বিভিন্ন থানায়।


মন্তব্য