kalerkantho


নাটোরে সোনার দোকানে লুট, চার প্রহরী জখম

ঝালকাঠিতে এক রাতে তিন বাড়িতে ডাকাতি

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



নাটোর সদরে দুটি স্বর্ণালংকারের দোকানে ডাকাতি হয়েছে। এ সময় ডাকাতরা  চার নৈশপ্রহরীকে কোপায়। অন্যদিকে ঝালকাঠির কাঁঠালিয়ায় এক রাতে তিন বাড়ি থেকে টাকা ও স্বর্ণালংকার লুটের ঘটনা ঘটেছে। বিস্তারিত প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে :

নাটোর : সদর উপজেলার হালসা বাজারে গত বুধবার রাতে দুটি স্বর্ণালংকারের দোকানে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ডাকাতরা বাজারের চার নৈশ প্রহরীকে কুপিয়ে জখম করে। তাঁদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে থানায় একটি মামলার প্রস্তুতি চলছে। এদিকে ওই ঘটনার প্রতিবাদে গতকাল বৃহস্পতিবার ওই বাজারে সমাবেশ করা হয়েছে। হালসা বাজার উন্নয়ন কমিটির উদ্যোগে সমাবেশটি অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় লুট হওয়া মালামাল উদ্ধার ও ডাকাতদের গ্রেপ্তারের জোর দাবি জানান ব্যবসায়ীরা। ডাকাতির ঘটনা সম্পর্কে মৌসুমী জুয়েলার্সের মালিক আব্দুল মজিদ শাহ ও জবেদা জুয়েলার্সের মালিক সাইফুল ইসলাম জানান, বুধবার রাত আড়াইটার দিকে সশস্ত্র একটি ডাকাতদল তাঁদের দোকানের তালা কেটে ভেতরে ঢোকে। পরে টাকা, স্বর্ণালংকারসহ ২০ লক্ষাধিক টাকার মাল লুট করে ট্রাকে তোলে ডাকাতরা। এ সময় ডাকাতদের বাধা দিতে গেলে তারা বাজারের চার নৈশ প্রহরী লালন হোসেন, আব্দুল হান্নান, ফজর আলী ও আব্বাস আলীকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে নাটোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ব্যাপারে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন, লুণ্ঠিত মাল উদ্ধার ও ডাকাতদের গ্রেপ্তারে কাজ করছে পুলিশ।

ঝালকাঠি : কাঁঠালিয়া উপজেলায় একই রাতে তিনটি বাড়িতে ডাকাতি হয়েছে। গত বুধবার রাতে উপজেলার দক্ষিণ কৈখালী গ্রামে এসব ডাকাতির ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে বাড়ি তিনটি পরিদর্শন করেছে পুলিশ। এ ব্যাপারে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। পুলিশ জানায়, বুধবার রাতে ৮-১০ জনের সশস্ত্র একটি ডাকাতদল প্রথমে ওই গ্রামের প্রবাসী হারুন অর রশিদের বাড়িতে হানা দেয়। তারা ওই বাড়ির সবাইকে জিম্মি করে টাকাসহ স্বর্ণালংকার লুট করে। পরে ডাকাতরা ওই গ্রামের মাওলানা আব্দুল জব্বার ও আব্দুল খালেকের বাড়ি থেকে টাকা, স্বর্ণালংকারসহ তিন লক্ষাধিক টাকার মাল লুটে নেয়। কাঁঠালিয়া থানার ওসি মো. জাহিদ হোসেন এসব বিষয় নিশ্চিত করেছেন।


মন্তব্য