kalerkantho


নারায়ণগঞ্জে আট ডাকাত গ্রেপ্তার

কয়েক স্থানে ধরা আরো ৫

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



নারায়ণগঞ্জে পণ্যসহ ট্রাক ডাকাতির ঘটনায় ডাকাতদলের আট সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে ডিবি পুলিশ। এ ছাড়া আরো কয়েকটি স্থানে অভিযান চালিয়ে মাদক কারবারিসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

কালের কণ্ঠ’র প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর—

নারায়ণগঞ্জ : নারায়ণগঞ্জে পণ্যসহ ট্রাক ডাকাতির ঘটনায় ডাকাতদলের আট সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। ডাকাতদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে দুটি ট্রাক, ৭৯ ড্রাম ভোজ্য তেল, ২২টি খালি ড্রাম ও ডাকাতি কাজে ব্যবহৃত একটি পিকআপ ভ্যান। গত মঙ্গলবার রাত থেকে  গতকাল বুধবার সকাল পর্যন্ত রাজধানীর যাত্রাবাড়ী ও কদমতলীতে অভিযান চালিয়ে আট ডাকাতকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো মো. আরিফ হোসেন ওরফে কামাল, সামাদ, বেলায়েত হোসেন ওরফে বিল্লাহ, নিজাম উদ্দিন ওরফে সোহেল, আব্দুল বাতেন, মো. ফারুক হাওলাদার ও মো. সাখাওয়াত হোসেন মিলন।

 

টঙ্গী (গাজীপুর) : টঙ্গীর চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও একাধিক মামলার পলাতক আসামি ইসমাইল হোসেনকে গতকাল সকালে গ্রেপ্তার করেছে টঙ্গী মডেল থানার পুলিশ। পরে তাকে আদালতের মাধ্যমে গাজীপুর জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

টঙ্গী মডেল থানার ওসি (তদন্ত) আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘ইসমাইলের বিরুদ্ধে টঙ্গী থানায় ছিনতাই, চাঁদাবাজি, দাঙ্গা-হাঙ্গামা, হত্যাচেষ্টাসহ একাধিক মামলা রয়েছে। তাকে আমরা আউচপাড়া এলাকার একটি মারামারি মামলায় গ্রেপ্তার করে গাজীপুর জেলহাজতে পাঠিয়েছি। ’

মুন্সীগঞ্জ : মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ে অভিযান চালিয়ে অস্ত্রসহ শাহাবুদ্দিন নামের এক সন্ত্রাসীকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-১১।

গতকাল ভোরে উপজেলার মাশুদগাঁও গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তার ঘর থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, সাত রাউন্ড গুলি, একটি লোকাল গান (এলজি), পাঁচ রাউন্ড শটগানের গুলি ও দুটি ম্যাগাজিন উদ্ধার করা হয়।

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) : রূপগঞ্জ থেকে কালু মিয়া নামের এক সাজাপ্রাপ্ত আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল সন্ধ্যায় পাঁচাইখা এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। কালু ওই এলাকার তৈয়ব আলীর ছেলে।

গাজীপুর : গাজীপুরে একটি বিদেশি পিস্তল ও এক রাউন্ড গুলিসহ দুই সন্ত্রাসীকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। গত মঙ্গলবার রাতে গাজীপুর মহানগরীর বাহাদুরপুর এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো মো. মনোয়ার হোসেন শিপন ও মো. আব্দুল আলীম।


মন্তব্য