kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


মাওয়া-বালিগাঁও সড়ক

ড্রেজারের পাইপে সিরিজ দুর্ঘটনা

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি   

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



মুন্সীগঞ্জের মাওয়া থেকে বালিগাঁও ১৪ কিলোমিটার সড়কে অর্ধশতাধিক ড্রেজারের পাইপ বসানো রয়েছে। মাটির লেভেল থেকে কিছুটা ওপরে হওয়ায় ওই পাইপে লেগে প্রায়ই সড়কে চলাচলকারী গাড়ি দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে।

গত এক মাসে এভাবে ডজনের বেশি দুর্ঘটনা ঘটলেও এ বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে না।

এদিকে গত শনিবার সন্ধ্যায় মাওয়া-লৌহজং-বালিগাঁও সড়কের ঘোলতলী-জোড়পুলের মাঝখানে নগরবাড়ীতে রাস্তার ওপর ড্রেজিং পাইপের সঙ্গে মোটরসাইকেলের ধাক্কা খেয়ে দুজন গুরুতর আহত হয়েছেন। তাঁরা হলেন উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মো. তাজুল ইসলাম হাওলাদারের ভাতিজা ও ভাগিনা পয়সা গ্রামের মো. কায়েস হাওলাদার ও কুড়িগাঁও গ্রামের নবীন বেপারী। দুজনই বর্তমানে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের আইসিইউতে রয়েছেন।

স্থানীয় অটোচালক আব্দুল মান্নান জানান, গত এক মাসে সড়কটিতে শুধু দিনের বেলায়ই অটো, সিএনজি, মোটরসাইকেল, টেম্পো, পিকআপ ভ্যানসহ অন্তত ১৫টি দুর্ঘটনা ঘটেছে। তা ছাড়া রাতে ঘটা দুর্ঘটনার তো খবরই পাওয়া যায় না। শুধু ড্রেজারের পাইপের কারণে এসব দুর্ঘটনা ঘটলেও এ ব্যাপারে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না।

সিএনজিচালিত অটোরিকশাচালক মিন্টু শেখ জানান, ড্রেজারের পাইপ বসানোর কারণে রাস্তার কিছু অংশ উঁচু আবার কিছু অংশ নিচু থাকায় গাড়ি চলাচলে সমস্যা হয়। অনেক সময় এ পাইপের ওপর গাড়ি বিকল হয়ে যায়। এর ওপর একটু বৃষ্টি হলে পাইপের ওপর দেওয়া বালু ও সুরকি মিলে রাস্তা চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ে।

গাড়িচালকদের অভিযোগ, রাস্তার ওপর দিয়ে এসব ড্রেজারের পাইপ নেওয়ার পর রাস্তার দুই দিকে কোনো ধরনের সতর্কতামূলক ব্যবস্থা বা কোনো নির্দেশনামূলক চিহ্ন না দেওয়ায় দুর্ঘটনা ঘটছে। রাস্তার ওপর ড্রেজারের পাইপের দুই পাশে সতর্ক ব্যবস্থা না থাকায় রাতের অন্ধকারে দূর থেকে দেখে বোঝা যায় না যে এখানে পাইপ রয়েছে।

এ বিষয়ে লৌহজং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ খালেকুজ্জামান জানান, বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন মহলের সঙ্গে একাধিকবার বসা হয়েছে। সে অনুযায়ী গত ৭ সেপ্টেম্বরের মধ্যে সব ড্রেজারের পাইপ রাস্তা থেকে সরিয়ে নেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু মাসের শেষ পর্যায়ে এসেও তা কার্যকর করা যায়নি।


মন্তব্য