kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দম্পতিকে প্রকাশ্যে জুতাপেটা করলেন ইউপি সদস্য

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি   

২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার সদর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য প্রকাশ্যে এক দম্পতিকে জুতাপেটা করেছেন।

গত শনিবার সন্ধ্যার দিকে সদর ইউনিয়নের মধুখালী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নির্যাতিত গৃহবধূর অভিযোগ, গুতিয়াবোর ইউপি সদস্য মোরশেদ কয়েক মাস ধরে তাঁকে কুপ্রস্তাব দেন। প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় দীর্ঘদিন ধরে তাঁকে হুমকিধমকি দেন। ছয় দিন আগে বাবার বাড়ি বেড়াতে আসেন তিনি। শনিবার সন্ধ্যায় অটোরিকশাযোগে ওই দম্পতি মধুখালী যাচ্ছিলেন। এ সময় ইউপি সদস্য মোরশেদ, সহযোগী পারভেজসহ ১৫-২০ জন ধারালো অস্ত্র নিয়ে তাঁদের পথরোধ করেন। একপর্যায়ে সবার সামনে স্বামী-স্ত্রীকে জুতা ও লাঠিপেটা করে গুরুতর আহত করা হয়। পরে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে হুমকিধমকি দেওয়া হয়। ভয়ে কেউ প্রতিবাদ করেনি। এ সময় নারীর সঙ্গে থাকা ১০ ভরি স্বর্ণালংকার লুট করা হয়। পরে তাঁরা স্বামী-স্ত্রী দাদার বাড়িতে গিয়ে আশ্রয় নেন। পরে ওই দাদাকেও মারধর করা হয়।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করলে অভিযুক্ত ইউপি সদস্য মোরশেদ উল্টো ওই নারীর বিরুদ্ধে হয়রানির অভিযোগ করেন। রূপগঞ্জ থানার ওসি ইসমাইল হোসেন বলেন, ‘এ ধরনের ঘটনা আমার জানা নেই। অভিযোগ পেলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ’

দুই কিশোরকে নির্যাতনের অভিযোগ

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে শত্রুতার জের ধরে দুই কিশোরকে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার দুপুরে উপজেলার খাদুন এলাকায় ওই ঘটনা ঘটে।

নির্যাতনের শিকার হূদয়ের বাবা খোকন মিয়া জানান, খাদুন এলাকার জাহাঙ্গীর মিয়ার সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে তাঁর বিরোধ চলছিল। গতকাল শনিবার দুপুরে আনোয়ার মিয়া নামের এক ব্যক্তির জমিতে খেলতে যায় তাঁর ছেলে হূদয় ও তার বন্ধু রাব্বি। সেখানে প্রতিপক্ষ জাহাঙ্গীর মিয়াসহ কয়েকজন হূদয় ও রাব্বিকে মারধর করে। পরে ওই দুজনকে গাছের সঙ্গে বেঁধে রেখে নির্যাতন করা হয়। এ সময় তাঁদের চিত্কারে মালু মিয়া নামের এক ব্যক্তি এগিয়ে এলে তাঁকেও মারধর করা হয়।

তবে অভিযুক্তদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তাঁরা ওই অভিযোগ মিথ্যা বলে দাবি করেন। এ ব্যাপারে রূপগঞ্জ থানার ওসি ইসমাইল হোসেন বলেন, এ ধরনের একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

মাদক কারবারি আটক

রূপগঞ্জ থেকে সুখরঞ্জন দাস (৫২) নামের এক মাদক কারবারিকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল শনিবার সকালে কাঞ্চন পৌর এলাকার কেন্দুয়া থেকে ১৪ লিটার চোলাই মদসহ তাকে আটক করা হয়। সুখরঞ্জন দাস ওই এলাকার মৃত দীনেশ দাসের ছেলে।  

ভোলাব তদন্তকেন্দ্রের উপপরিদর্শক (এসআই) মো. খাইরুল ইসলাম জানান, সুখরঞ্জন দাস এলাকার একজন শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে রূপগঞ্জ থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা হয়েছে।


মন্তব্য