kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


নাজিরপুরে বাউবির পরীক্ষা

নকলের জন্য টাকা আদায়

পিরোজপুর প্রতিনিধি   

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



নকলের জন্য টাকা আদায়

পিরোজপুরের নাজিরপুর ডিগ্রি কলেজ কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষায় শিক্ষকদের সহায়তায় প্রকাশ্যে নকলের মহোৎসব চলছে। আর বিশেষ এ সুবিধা পাইয়ে দিতে প্রত্যেক পরীক্ষার্থীর কাছ থেকে বিষয়প্রতি ৫০০ টাকা করে আদায় করা হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গতকাল শুক্রবার সরেজমিনে ওই দিন কলেজ কেন্দ্রের পুরনো টিনশেড ভবনে অনুষ্ঠিত ডিগ্রি কেন্দ্রে গিয়ে শিক্ষকদের উপস্থিতিতে প্রকাশ্যে নকল চলার প্রমাণ পাওয়া যায়। এ সময় কেন্দ্রে অধ্যক্ষের কক্ষে গিয়ে দেখা যায়, সেখানে বসা আছেন উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. এনায়েতুল্লাহ। প্রকাশ্যে নকলের খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রেজাউল করিম পরীক্ষাকেন্দ্রে গিয়ে নকলমুক্ত পরীক্ষার কথা বললে অধ্যক্ষ আফজাল হোসেন খান সাংবাদিকদের সামনেই নির্বাহী কর্মকর্তাকে বলেন, একবারে নকলমুক্ত পরীক্ষা সম্ভব নয়, কিছু নকল তো হবেই।

গতকাল শুক্রবার সকালে অনুষ্ঠিত স্নাতক শ্রেণির ইসলামিক স্টাডিস বিষয়ের এক পরীক্ষার্থী জানান, বিশেষ সুবিধার জন্য তিনি ৫০০ টাকা দিয়েছেন। এইচএসসির পৌরনীতি বিষয়ের আরেক পরীক্ষার্থীও ৫০০ টাকা দিয়েছেন জানিয়ে বলেন, টাকা না দিলে সুবিধা পাওয়া যায় না। একই ধরনের বক্তব্য দেন ওই দিন বিকেলের পরীক্ষায় অংশ নেওয়া ডিগ্রি ষষ্ঠ সেমিস্টার ও এইচএসসির দুই ছাত্রী।

উপজেলা সদরের নাজিরপুর ডিগ্রি কলেজ কেন্দ্র সূত্রে জানা গেছে, এ বছর উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন এইচএসসিতে ১৩০ ও ডিগ্রিতে ১৬০ জন পরীক্ষার্থী রয়েছে। অভিযোগ রয়েছে, পরীক্ষাপ্রতি শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে ৫০০ করে টাকা নেওয়া হচ্ছে। সে হিসেবে প্রতিটি পরীক্ষায় প্রায় দেড় লাখ টাকা আদায় হচ্ছে। ওই কলেজের শিক্ষক মুজিবুর রহমান বালী, ইব্রাহীম শেখ, মাধব চন্দ্র মণ্ডল ও অফিস সহকারী মো. এনামুল করিম মিলনের নেতৃত্বে এ টাকা আদায় করা হচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। তবে প্রথমোক্ত দুজন শিক্ষক টাকা আদায়ের কথা অস্বীকার করলেও অন্য শিক্ষক মাধব চন্দ্র মণ্ডল জানান, কর্তৃপক্ষের নির্দেশে বকেয়া টাকা আদায় করা হচ্ছে।

 


মন্তব্য