kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


আশুলিয়ায় শ্রমিক বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার (ঢাকা)   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



চাকরিতে পুনর্বহাল, বকেয়া বেতন-ভাতা পরিশোধ ও নির্যাতন বন্ধসহ ৯ দফা দাবিতে মানববন্ধন করেছে আশুলিয়া শিল্পাঞ্চলের ঘোষবাগের সোনিয়া অ্যান্ড সোয়েটার্স লিমিটেড কারখানার ছাঁটাই হওয়া তিন শতাধিক শ্রমিক। গতকাল বুধবার দুপুরে নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়কের বাইপাইলে আশুলিয়া প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন করেন তাঁরা।

মানববন্ধনকারী শ্রমিকদের কাছ থেকে জানা যায়, এক বছর ধরে কারখানায় কাজ না থাকার অজুহাতে কর্তৃপক্ষ তাঁদের পুরো বেসিক বেতনসহ অন্যসব পাওনাদি পরিশোধ থেকে বিরত রয়েছে। অথচ শ্রম আইনে কারখানায় কাজ না থাকলে প্রত্যেক শ্রমিককে বেসিক বেতন দেওয়ার বিধান রয়েছে। কর্তৃপক্ষের কাছে বেসিক বেতন চাইতে গেলে তারা সন্ত্রাসী দিয়ে শ্রমিকদের নিপীড়ন-নির্যাতন করে। এ ছাড়া কারখানাটিতে বার্ষিক ছুটির টাকা পরিশোধ করা হয় না। উত্পাদন বোনাস এবং পিস রেট নির্ধারণেও সমস্যা রয়েছে। কয়েক মাস ধরে মালিকপক্ষ কারখানায় অটো (জ্যাকার্ড) মেশিন তোলার জন্য পরিকল্পিতভাবে শ্রমিক ছাঁটাই করছে। সর্বশেষ গত সোমবার কর্তৃপক্ষ বেআইনিভাবে পঞ্চম তলার নিটিং সেকশনের ৩২৩ জন শ্রমিককে ছাঁটাই করে। এ পরিস্থিতিতে শ্রমিকরা ওই দিন কারখানার পরিচালক মাহাবুবুর রহমানের কাছে গিয়ে তাঁদের ৯ দফা দাবি তুলে ধরেন। এ সময় কারখানার পরিচালক শ্রমিকদের কোনো কথা না শুনেই তাঁদের আর চাকরিতে রাখবেন না বলে তাঁর (পরিচালক) কক্ষ থেকে বের করে দেন। পরদিন মঙ্গলবার শ্রমিকরা কারখানায় উপস্থিত হলে তাঁদের হাত-পা ভেঙে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়। ওই দিন রাতে পুলিশ ও সন্ত্রাসীরা শ্রমিকদের বাসায় বাসায় গিয়ে হুমকি-ধমকি দিয়ে এলাকা ছাড়ার নির্দেশ দেয়। এ ব্যাপারে বক্তব্য নিতে ওই কারখানায় গিয়ে ঊর্ধ্বতন কোনো কর্মকর্তাকে পাওয়া যায়নি।

এদিকে অভিযোগ অস্বীকার করে শিল্প পুলিশ-১ সাভার-আশুলিয়া জোনের পরিচালক পুলিশ সুপার (এসপি) মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, কারখানাটিতে বর্তমানে কাজ নেই। কাজ না থাকলেও কর্তৃপক্ষ শ্রমিকদের নিয়ম অনুযায়ী বেসিক বেতন দিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু সেই টাকার পরিমাণ কম হওয়ায় শ্রমিকদের সমস্যা হচ্ছে। এ অবস্থায় মালিকপক্ষ চাচ্ছে শ্রমিকরা রিজাইন দিয়ে চলে যাক। আর শ্রমিকরা চাচ্ছে মালিকপক্ষ তাঁদের টার্মিনেট করে প্রাপ্য টাকা-পয়সা বুঝিয়ে দিক। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে। তবে যেকোনো অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে কারখানাটির সামনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

অন্যদিকে আশুলিয়ার দোসাইদ এলাকায় বন্ধ কারখানা খুলে দেওয়াসহ বিভিন্ন দাবিতে আন্দোলন অব্যাহত রেখেছে রক নিটওয়্যার লিমিটেডের শ্রমিকরা। আন্দোলনের দ্বিতীয় দিনে গতকাল বুধবার তাঁরা কারখানার সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করে। আন্দোলনরত শ্রমিকরা জানান, তিন শতাধিক শ্রমিক ১০ সেপ্টেম্বর তিন মাসের বকেয়া বেতন ও ঈদ বোনাসের দাবিতে কারখানার ভেতরে বিক্ষোভ মিছিল করেন। পরে মালিকপক্ষ শ্রমিকদের এক মাসের বেতন দিয়ে কারখানা ছুটি ঘোষণা করে। গতকাল মঙ্গলবার কারখানাটি খুলে দেওয়ার কথা ছিল। ঈদের ছুটি শেষে শ্রমিকরা গতকাল সকালে কাজে যোগ দিতে কারখানায় এসে গেটের সামনে ‘অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ’ লেখা নোটিশ দেখতে পান। ভেতরে ঢুকতে না পেরে বৃষ্টি উপেক্ষা করেই তাঁরা কারখানা খুলে দেওয়ার দাবিতে গেটের সামনে অবস্থান নেন। এ সময় শ্রমিকরা বকেয়া দুই মাসের বেতন ও ঈদ বোনাস দেওয়ারও দাবি জানাতে থাকেন। দাবি পূরণ না করলে অবস্থান কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেন তাঁরা।

এ বিষয়ে শিল্প পুলিশ-১ সাভার-আশুলিয়া জোনের পরিচালক এসপি মোস্তাফিজুর রহমান জানান, ঈদের আগে শ্রমিকদের বেতন-বোনাস দিয়ে দেওয়া হয়েছে। মালিকপক্ষ আর কারখানাটি চালাবে না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে।


মন্তব্য