kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


দৌলতদিয়ায় হচ্ছে আরো দুটি ঘাট

রাজবাড়ী প্রতিনিধি   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



পদ্মা নদীর ভাঙনে গত দুই মাসে দক্ষিণাঞ্চলের ২১ জেলার অন্যতম প্রবেশদ্বার রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়ার চারটি ফেরিঘাটই বিলীন হয়ে যায়। ভাঙনকবলিত স্থানে কোনো রকমে ঘাট স্থাপন করে যান পারাপার স্বাভাবিক রাখা হয়েছে।

এ অবস্থায় রাজবাড়ী সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ) পুরনো ফেরিঘাট এলাকায় আরো দুটি ফেরিঘাট স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছে। এর অংশ হিসেবে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে সংযোগ (অ্যাপ্রোচ) সড়ক নির্মাণের জন্য জমি অধিগ্রহণের অনুমতি দেওয়া হয়েছে রাজবাড়ী সওজকে। চূড়ান্ত অনুমোদন পেতে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ে চিঠি পাঠিয়েছে সওজ। অনুমোদন পাওয়া গেলেই শুরু হবে কাজ।

ইতিমধ্যে রাজবাড়ী সওজের নির্বাহী প্রকৌশলীর কার্যালয় থেকে একই বিভাগের (সওজ) ফরিদপুর সার্কেলের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলীর কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে। চিঠিতে বলা হয়েছে, রাজবাড়ীর দৌলতদিয়া ঘাট দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল ও দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের ২১টি জেলার জনসাধারণের সুষ্ঠু যাতায়াতের ও দৌলতদিয়া-ফরিদপুর-মাগুরা-ঝিনাইদহ-যশোর-খুলনা-মংলা (দ্বিগরাজ) এন-৭ জাতীয় মহাসড়কের প্রবেশদ্বার। রাজধানী ঢাকাসহ স্থলবন্দর বেনাপোল ও বন্দরনগর চট্টগ্রামের সেতুবন্ধ হিসেবে কাজ করে আসছে ঘাটটি। এ ঘাট দিয়ে প্রতিদিন ১৮০০ থেকে ২১০০ ছোট-বড় যানবাহন পারাপার হয়। এর মধ্যে ঢাকা-কলকাতা যাত্রীবাহী কোচ, অভ্যন্তরীণ যাত্রীবাহী পরিবহন, ভিআইপিদের গাড়িবহর, অ্যাম্বুল্যান্স ও পণ্যবাহী ট্রাক রয়েছে। সেই সঙ্গে ঈদসহ শীত মৌসুমের ওরস মাহফিলগামী যানবাহনের বাড়তি চাপ তো রয়েছেই।


মন্তব্য