kalerkantho


ভ্রাম্যমাণ আদালত

মা-বাবাকে মারধর করায় ছেলের জেল

অবৈধ গ্যাস লাইন উচ্ছেদ, পাঁচ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



ঝিনাইদহের হরিণাকুণ্ডুতে মা-বাবাকে মারধর করায় ছেলেকে ও ভুয়া জন্ম সনদপত্র তৈরির দায়ে এক ব্যক্তিকে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও কুমিল্লার দাউদকান্দিতে দুই হাজার ২০০ ফুট অবৈধ গ্যাস লাইন উচ্ছেদ ও হবিগঞ্জে পাঁচ ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করা হয়েছে। গতকাল বুধবার এসব আদালত পরিচালনা করা হয়।

ঝিনাইদহ : চার মাসের কারাদণ্ডপ্রাপ্ত বিল্লাল হোসেন হরিণাকুণ্ডু উপজেলার চটকাবাড়িয়া গ্রামের সাদ্দাম মণ্ডল ও সবুরা খাতুনের ছেলে। ইউএনও মনিরা পারভীন ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন। হরিণাকুণ্ডু থানার উপপরিদর্শক (এসআই) অধর চন্দ্র জানান, বিল্লাল হোসেন প্রায়ই বাবা সাদ্দাম হোসেন ও মা সবুরাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতেন। ছেলের মারধর সহ্য করতে না পেরে সাদ্দাম হোসেন থানায় অভিযোগ করেন।

রৌমারী (কুড়িগ্রাম) : তিন দিনের কারাদণ্ডপ্রাপ্ত কালু শেখের (৫৫) বাড়ি রৌমারীর বংশিপাড়া গ্রামে। অভিযোগে জানা যায়, কালু শেখ টাকা নিয়ে কুড়িগ্রাম নোটারি পাবলিকের নামে ভুয়া এফিডেভিট, মেয়ের বয়স বাড়ানোর ভুয়া জন্ম সনদ তৈরি করতেন। গত সোমবার চরধনতলা গ্রামের জমিয়েল হকের পঞ্চম শ্রেণি পড়ুয়া মেয়ে জবা খাতুনের সঙ্গে আবদুল হামিদের ছেলে এমদাদুল হকের (১৫) বিয়ে হয়। এ বিয়েতে কালু শেখ ভুয়া এফিডেভিট তৈরি করে দেন।

এভাবে গত দুই বছরে প্রায় ৫০টি বাল্যবিয়েতে সহায়তা করেন কালু শেখ।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : সদর উপজেলার নাটাই (উত্তর) ইউনিয়নের রাজঘর ও আমতলী এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত প্রায় ২০০ ফুট অবৈধ গ্যাস পাইপলাইন অপসারণ করেন।

দাউদকান্দি (কুমিল্লা) : দাউদকান্দির বারিকান্দি ও শায়েস্তানগরে অবৈধভাবে নির্মাণাধীন প্রায় দুই হাজার ফুট গ্যাস লাইন উচ্ছেদ করা হয়। ইউএনও মো. আল আমিনের ভ্রাম্যমাণ আদালত এ অভিযান চালান। বাখরাবাদ গ্যাস সিস্টেম লিমিটেডের গৌরীপুর আঞ্চলিক অফিসের ইনচার্জ প্রকৌশলী কমল ঘোষ জানান, একটি প্রভাবশালী মহল অনুমতি ছাড়াই দুই ইঞ্চি ব্যাসের জিআই পাইপ দিয়ে লাইন নির্মাণ করছিল।

হবিগঞ্জ : নোংরা পরিবেশে খাদ্য বিক্রির অভিযোগে হবিগঞ্জ শহরের জয় গোপাল মিষ্টান্ন ভাণ্ডারকে পাঁচ হাজার ও আদি গোপাল মিষ্টান্ন ভাণ্ডারকে দুই হাজার, লাখাই উপজেলার কালাউক বাজারে দুটি বেকারিকে ১৫ হাজার টাকা করে ও একটি রেস্টুরেন্টকে দুই হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। আদালত পরিচালনা করেন যথাক্রমে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দা শামসাদ বেগম ও এ এইচ এম আরিফুল হক।


মন্তব্য