kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।

আত্মহনন

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি   

২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়ীতে মায়ের সঙ্গে অভিমান করে আবদুল্লাহ নামের এক মাদ্রাসা ছাত্র আত্মহত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে উপজেলার আউটশাহী গ্রামের নিজ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

খবর পেয়ে দুপুরে ঘটনাস্থল থেকে ওই ছাত্রের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মুন্সীগঞ্জ হাসপাতাল মর্গে পাঠায় পুলিশ। আবদুল্লাহ ওই গ্রামের খাইরুল ইসলামের ছেলে ও আউটশাহী কামিল মাদ্রাসার ছাত্র ছিল। পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, আবদুল্লাহ ঢাকায় বেড়াতে যেতে চাইলে তার মা নিষেধ করেন। এ ঘটনায় মায়ের সঙ্গে অভিমান করে সে গতকাল সকালে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে। টঙ্গিবাড়ী থানার এসআই নুরুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে যশোর থেকে আমাদের বিশেষ প্রতিনিধি জানান, মোবাইল ফোনে প্রতারণার শিকার হয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন আনোয়ার হোসেন আনু নামের এক ফল ব্যবসায়ী। গত সোমবার রাতে এ ঘটনা ঘটে। ওই ব্যবসায়ীর বাড়ি যশোর শহরের ঘোপ এলাকায়। পুলিশ তাঁর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালে পাঠিয়েছে। ওই ব্যবসায়ীর ভগ্নিপতি ফারুক হোসেন বলেন, কয়েক দিন আগে একটি প্রতারকচক্র গ্রামীণ কম্পানির কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে আনুকে জানায়, তিনি ১৪ লাখ টাকার লটারি জিতেছেন। এই টাকা পেতে হলে প্রাথমিকভাবে এক লাখ ছয় হাজার টাকা দিতে হবে। আনু ওই টাকা ছয়টি নম্বরে বিকাশ করেন। এরপর তিনি লটারি জেতার আনন্দের সংবাদ পরিবারের সদস্য ও প্রতিবেশীদের জানান। পরে তিনি বুঝতে পারেন তিনি প্রতারিত হয়েছেন। ওই ছয়টি নম্বর বন্ধ পাওয়া যায়। এ কারণে আনু মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন। একপর্যায়ে তিনি আত্মহত্যার পথ বেছে নেন। কোতোয়ালি মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সোবহান শরিফ জানান, এ

ব্যাপারে অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে। মোবাইলে প্রতারণার ঘটনা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।


মন্তব্য