kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


আশাশুনিতে বেড়িবাঁধ ভেঙে দুই গ্রাম প্লাবিত

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি   

২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



সাতক্ষীরার আশাশুনিতে গত রবিবার মধ্যরাতে কপোতাক্ষের বেড়িবাঁধ ভেঙে দুটি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। উপজেলার প্রতাপনগর শ্রীপুর লঞ্চঘাট এলাকায় প্রবল জোয়ারের চাপে কপোতাক্ষ নদের প্রায় ১৫০ ফুট বেড়িবাঁধ ভেঙে কুড়িকাউনিয়া ও শ্রীপুর গ্রাম প্লাবিত হয়।

প্রতাপনগর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সদস্য কুড়িকাউনিয়া গ্রামের খলিলুর রহমান জানান, আইলা পরবর্তী সময় যথাযথভাবে বাঁধ সংস্কার না হওয়ায় আশাশুনি উপজেলার বেশ কিছু বাঁধ দুর্বল ছিল। ফলে প্রতি বছর শ্রীপুর লঞ্চঘাট, সুভদ্রকাটিসহ বিভিন্ন স্থানে ভাঙন দেখা দেয়। এরই ধারাবাহিকতায় রবিবার মধ্যরাতে প্রবল জোয়ারে পানির চাপে শ্রীপুর লঞ্চঘাটের পাশে ৭/২ নম্বর পোল্ডারের প্রায় ১৫০ ফুট বেড়িবাঁধ ভেঙে নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায়। পানি ঢুকে শ্রীপুর ও কুড়িকাউনিয়া গ্রাম প্লাবিত হয়। তাতে শতাধিক পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়ে। পানিতে তলিয়ে গেছে শতাধিক মত্স্যঘের ও ফসলি জমি। প্রতাপনগর ইউপি চেয়ারম্যান জাকির হোসেন জানান, ইতিমধ্যে স্থানীয় দুই শতাধিক মানুষ স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে বেড়িবাঁধটি সংস্কার করার চেষ্টা চালাচ্ছেন। বেড়িবাঁধটি সংস্কার করা না গেলে পরবর্তী জোয়ারে আরো অনেক এলাকা প্লাবিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। তিনি আরো জানান, পানি উন্নয়ন বোর্ডের অবহেলার কারণেই প্রতাপনগর ইউনিয়নবাসীর এ দুর্দশা। বারবার বলার পরও পানি উন্নয়ন বোর্ড ঝুঁকিপূর্ণ বাঁধ সংস্কারে তেমন কোনো উদ্যোগ নেয়নি।

সাতক্ষীরা পানি উন্নয়ন বোর্ড-২-এর সেকশন অফিসার আবুল হোসেন জানান, তিনি ঘটনাস্থল ঘুরে এসে বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন। কাজের সুবিধার্থে স্থানীয় জনগণকে এক হাজার খালি সিমেন্টের বস্তা সরবরাহ করা হয়েছে।

চার বাংলাদেশিকে ফেরত দিয়েছে বিএসএফ

এদিকে কলারোয়া সীমান্তে বিজিবির সঙ্গে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ভারতে আটক চার বাংলাদেশিকে ফেরত দিয়েছে বিএসএফ। সোমবার সকাল ৯টায় উপজেলার সোনাবাড়িয়া ইউনিয়নের উত্তর ভাদিয়ালী সীমান্তের মেইন ১৩-এর সাবপিলার ৩-এর কাছে ওই পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ফেরত আসা বাংলাদেশিরা হলেন রাজবাড়ীর জুলমত সরদারের ছেলে হাসান সরদার (২৪), সুনামগঞ্জের আবুল বাশারের ছেলে হোসেন আলী (১৮), একই এলাকার মমরোজ আলীর ছেলে রমজান আলী (২৫) এবং নড়াইল সদরের মৃত নজরুল মল্লিকের ছেলে সেলিম মল্লিক (২৬)।

কলারোয়ার মাদরা বিজিবি ক্যাম্পের ল্যান্সনায়েক মো. আলাউদ্দীন ও হাবিলদার মুজিবর রহমান জানান, ভারতের বিথারী এবং তারালী ক্যাম্পের বিএসএফ সদস্যরা হস্তান্তর করা চার বাংলাদেশিকে সন্দেহজনক অবস্থায় ঘোরাঘুরি করতে দেখে আটক করেছিল। পরে বিএসএফ বিষয়টি জানিয়ে পতাকা বৈঠকের আহ্বান জানালে বিজিবি তাতে সাড়া দেয়।

ফেরত আসা চার বাংলাদেশি জানান, তাঁরা রাজমিস্ত্রির কাজ করার জন্য দালালের মাধ্যমে অবৈধভাবে ভারতে যান। ফেরার পথে তাঁরা বিএসফের হাতে আটক হন।  


মন্তব্য