kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


বেড়ায় যুবলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ ২০ জন গুলিবিদ্ধ

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, পাবনা   

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



পাবনার বেড়া পৌর এলাকার সানিলা মহল্লায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে স্থানীয় যুবলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ চলাকালে ২০ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাদের বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজসহ বিভিন্ন চিকিৎসাকেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।

সংঘর্ষের পর এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশি টহল জোরদার করা হয়েছে।

এলাকাবাসী জানায়, বেড়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আব্দুর রশিদ দুলালের গ্রুপের সঙ্গে উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. রমজান আলী ও পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ময়ছার আলী গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে প্রভাব বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলছিল। এরই জেরে গত শনিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে রমজান ও ময়ছার গ্রুপের লোকজন যুবলীগের সভাপতি আব্দুর রশিদ দুলালের বাড়ি এবং তাঁর নিয়ন্ত্রিত সানিলা মহল্লার যুবলীগ অফিসে অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় দুলাল ও তাঁর লোকজন বাধা দিলে উভয় গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। সংঘর্ষ চলাকালে বেশ কয়েক রাউন্ড গুলির শব্দ শোনা যায়। এ ছাড়া ময়ছার গ্রুপের লোকজন দুলালের নিয়ন্ত্রিত সানিলা মহল্লার যুবলীগের কার্যালয় ভাঙচুর করে।

সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধরা হলো রমজান ও ময়ছার গ্রুপের আলীম, রুবেল, শাওন, হাসমত, খলিল, রাসেল, রায়হান, নান্টু, বাচ্চু ও ইয়াকুব। অন্যদিকে দুলাল গ্রুপের আরিফ, ছোট শামীম, বড় শামীম ও মকবুল। অন্যদের নাম জানা যায়নি।

বেড়া মডেল থানার ওসি ফিরোজ আহম্মেদ বলেন, ‘সংঘর্ষে কয়েক রাউন্ড গুলি হয়েছে বলে শুনেছি। এ ঘটনায় আব্দুর রব বাদী হয়ে বেড়া মডেল থানায় মামলা করেছেন। তদন্ত করে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ’

কুষ্টিয়ায় আ. লীগে সংঘর্ষ, আহত ১৫

এদিকে কুষ্টিয়া থেকে আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক জানান, কুমারখালীতে আওয়ামী লীগের বিবদমান দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে উভয় পক্ষে অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে। এর মধ্যে পাঁচজনকে কুষ্টিয়া মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গতকাল রবিবার ভোরে উপজেলার বাগুলাট ইউনিয়নের বাঁশগ্রামে এ ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, গতকাল সকাল ৬টার দিকে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘদিনের বিবাদের জের ধরে বাগুলাট ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলী হোসেন গ্রুপ ও বাগুলাট ইউপি চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা জামাল উদ্দিন সরকারের সমর্থকদের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় উভয় পক্ষ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে অন্তত ১৫ জন আহত হয়।


মন্তব্য