kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


আট গ্রামের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষে আহত ৫০

গুলি-কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে পুলিশ

হবিগঞ্জ ও মাদারীপুর প্রতিনিধি   

১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



পূর্ববিরোধের জেরে শনিবার হবিগঞ্জের আটটি গ্রামের লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষে অন্তত ৫০ জন আহত হয়েছে। ভাঙচুর ও লুটপাট করা হয়েছে ১২টি দোকান।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ১০৮ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ৪৭ রাউন্ড কাঁদানে গ্যাসের শেল ছোড়ে পুলিশ।

সূত্র জানায়, প্রায় এক মাস আগে হবিগঞ্জ সদর উপজেলার চানপুর ও পাশের বানিয়াচং উপজেলার শাহপুর গ্রামের শিশুদের মধ্যে ঝগড়া হয়। এর জেরে গত বৃহস্পতিবার রাতে চানপুর গ্রামের নইয়া মিয়ার ছেলে সেলিম মিয়াকে তাঁর বাড়িতে গিয়ে শাহপুর গ্রামের নজরুল চৌধুরীর ছেলে ব্যবসায়ী ইমন চৌধুরী রামদা দিয়ে কুপিয়ে ক্ষতবিক্ষত করেন। পরে সেলিমকে গুরুতর অবস্থায় সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। ইমন ও সেলিম শাহপুর বাজারের ব্যবসায়ী।

এ ঘটনার জেরে গতকাল দুপুরে চানপুর গ্রামের লোকজন শাহপুর বাজারে গিয়ে দোকান ভাঙচুর ও লুটপাট শুরু করে। শাহপুরের লোকজন পাল্টা হামলা চালালে ভয়াবহ সংঘর্ষ শুরু হয়। পরে সংঘর্ষে চানপুর গ্রামের পক্ষ নেয় সদর উপজেলার কাশিপুর ও গজারিয়াকান্দি গ্রাম এবং শাহপুরের পক্ষ নেয় বানিয়াচংয়ের ইয়ালা, রতনপুর, দক্ষিণ সাঙ্গর ও মক্রমপুর গ্রাম। খবর পেয়ে জ্যেষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার রাসেলুর রহমান, সদর থানার ওসি ইয়াছিনুল হক ও বানিয়াচং থানার ওসি অমূল্য কুমার চৌধুরীর নেতৃত্বে পুলিশ দুই ঘণ্টা পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। আহতদের হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

কালকিনিতে সংঘর্ষ আহত ১০ : মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলার বাঁশগাড়ি ইউনিয়নের ভাটাবালী গ্রামে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে গতকাল শনিবার সকালে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। তাদের মধ্যে কয়েকজনকে কালকিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।


মন্তব্য