kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


শ্যামনগরে নারী চিকিৎসককে হেনস্তা

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি   

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এক নারী চিকিৎসককে (চিকিৎসা কর্মকর্তা) হেনস্তার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সম্প্রতি পুলিশ তাঁকে আটকের পর থানায় নিয়ে ছেড়ে দিয়েছে।

ওই চিকিৎসকের দাবি, স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতাদের মদদে পুলিশ তাঁকে আটক করেছিল। আটকের সময় তোলা ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে দিয়ে এখন তাঁকে হয়রানি করা হচ্ছে।

ওই নারী বলেন, তিনি গত ২১ জানুয়ারি পদোন্নতি পান। ওই দিন তাঁর বিরুদ্ধে ছাত্রলীগ মিছিল করেছিল। এরপর থেকে কোনো রোগীর চিকিৎসা দিলেই তা নিয়ে একটি মহল নানা প্রশ্ন ছুড়তে শুরু করে। ওই চক্রটি কারণে-অকারণে হাসপাতালে এসে অশালীন কথাবার্তা বলে।

হাসপাতালের আরেক চিকিৎসা কর্মকর্তা ডা. আরিফুজ্জামান পলাশ বলেন, ‘ওই নারীর বিপদে পাশে দাঁড়ানোয় আমিও হেনস্তা হয়েছি। গত ১১ সেপ্টেম্বর আমার স্ত্রী ও ছেলেকে রাস্তায় আটকে দিয়ে মোবাইল কেড়ে নিয়েছে কয়েক যুবক। পরে মোবাইল আছড়ে ভেঙেছে। একই দিন পুলিশ আমাকে আটক করেছিল। ’

এ বিষয়ে সাতক্ষীরা জেলা বিএমএর (বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন) সভাপতি ডা. আজিজুর রহমান বলেন, ‘ওই নারী চিকিৎসক পুরোপুরি ষড়যন্ত্রের শিকার। ’

শ্যামনগর থানার ওসি এনামুল হক বলেন, ‘দুই চিকিৎসককে সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে আটক করা হয়েছিল। পরে রাতেই মুচলেকা নিয়ে তাঁদের ছেড়ে দেওয়া হয়। এখানে ষড়যন্ত্রের কিছু নেই। ’


মন্তব্য