kalerkantho


বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে তিন স্থানে তিনজনের মৃত্যু

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



ময়মনসিংহের নান্দাইলে বিয়ের অনুষ্ঠানে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে নিহত হয়েছে এক কলেজ ছাত্র। একই ঘটনায় নাটোরের নলডাঙ্গা ও সাতক্ষীরার আশাশুনিতে আরো দুজনের মৃত্যু হয়েছে।

বিস্তারিত প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে :

ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) : ময়মনসিংহের নান্দাইলে বিয়ের অনুষ্ঠানে বিদ্যুত্স্পৃষ্ট হয়ে উজ্জ্বল মিয়া নামের এক কলেজ ছাত্র নিহত হয়েছে। এ সময় কনের বড় বোন নাদিরা বেগম আহত হন। গত বৃহস্পতিবার রাতে নান্দাইল পৌরসভার চণ্ডীপাশা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। উজ্জ্বল নান্দাইল শহীদ স্মৃতি আদর্শ কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র ছিল।

জানা যায়, বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষে রাত ৮টার দিকে আলোকসজ্জা খোলার কাজে সহযোগিতা করছিল উজ্জ্বল। এ সময় সংযোগ দেওয়া একটি বৈদ্যুতিক তার গেটের সামনে ঝুলে ছিল। ঝুলন্ত তারটির স্পর্শে উজ্জ্বলের মৃত্যু হয়। কনের বড় বোন নাদিরা বেগম এগিয়ে গিয়ে  উজ্জ্বলের শরীরে ধরতেই ছিটকে পড়ে যান। বিদ্যুৎস্পর্শে তাঁর বাঁ হাত পুড়ে যায়।

তাঁকে নান্দাইল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।  

নাটোর : নলডাঙ্গা উপজেলায় বিদ্যুৎস্পর্শে হাসিনা বেগম নামের এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সকালে উপজেলার রামশাকাজিপুর কামারপাড়া গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে। হাসিনা ওই গ্রামের আব্দুল করিম ওরফে কান্দু শাহের স্ত্রী। জানা যায়, গতকাল সকাল সাড়ে ৯টার দিকে হাসিনা বাড়িতে পানি তোলার জন্য মোটর চালু করতে গেলে অসাবধানতাবশত বিদ্যুৎস্পর্শে গুরুতর আহত হন। পরিবারের লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে নাটোর সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

সাতক্ষীরা : বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে আমিন গাজী নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। গতকাল শুক্রবার ভোরে আশাশুনি উপজেলার গদাইপুর জেহের আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে এ ঘটনা ঘটে। এ ব্যাপারে স্থানীয় ইউপি সদস্য হোসেন আলী জানান, গত বৃহস্পতিবার রাতে ওই স্কুলে ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান ছিল। গভীর রাতে অনুষ্ঠান শেষে সবাই চলে যায়। পরে ভোরে আমিন ওই মাঠে হাঁটাহাঁটি করার সময় পড়ে থাকা তারে জড়িয়ে মারা যান।


মন্তব্য