kalerkantho

শনিবার । ৩ ডিসেম্বর ২০১৬। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ধর্ষণের পর হত্যা

কুষ্টিয়ায় ঘাতকের মৃত্যুদণ্ড

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুষ্টিয়া   

৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



কুষ্টিয়ায় শিশু অর্পা হত্যা মামলায় আসামি তপন কুমার বিশ্বাসকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড এবং এক লাখ টাকা জরিমানার রায় দিয়েছেন আদালত। গতকাল বুধবার কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ প্রথম আদালতের বিচারক রেজা মো. আলমগীর হাসান এ রায় দেন।

এ সময় আসামি আদালতে উপস্থিত ছিল।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০১৪ সালের ২৮ মার্চ বিকেলে কুষ্টিয়া শহরের আড়ুয়াপাড়ায় বিষ্ণপদ বিশ্বাসের ছেলে তপন কুমার বিশ্বাস প্রতিবেশী স্বপন কুমার পালের মেয়ে অর্পাকে (৮) ডেকে নিয়ে পাশের পরিত্যক্ত একটি ঘরে প্রথমে ধর্ষণ করে। পরে তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে লাশ ফেলে রাখে। পরদিন ২৯ মার্চ সন্ধ্যায় তপনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে তার স্বীকারোক্তিতে পরিত্যক্ত ওই ঘর থেকে অর্পার লাশ উদ্ধার করা হয়। ওই দিনই অর্পার বাবা তপন কুমারকে আসামি করে কুষ্টিয়া সদর মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। তপন ১৬৪ ধারায় তার অপরাধের কথা ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে স্বীকার করে। শুনানি শেষে সাক্ষী-প্রমাণের ভিত্তিতে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত এই রায় দেন।

আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী বলেন, চাঞ্চল্যকর এ শিশু হত্যা মামলায় বাদী পক্ষ উপযুক্ত বিচার পেয়েছে। পাশাপাশি অর্পার পরিবার এ রায়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছে।

গাইবান্ধায় শিশু ধর্ষণের দায়ে যুবকের কারাদণ্ড

এদিকে গাইবান্ধা প্রতিনিধি জানান, গাইবান্ধার সাঘাটার বোনারপাড়া ইউনিয়নের পশ্চিম রাঘবপুর গ্রামে শিশু ধর্ষণের দায়ে রাসেল মিয়া নামের এক যুবকের যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড, ১০ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে আরো ছয় মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। গত মঙ্গলবার বিকেলে গাইবান্ধা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক রত্নেশ্বর ভট্টাচার্য এ রায় দেন। রাসেল মিয়া পশ্চিম রাঘবপুর গ্রামের রাজু মিয়ার ছেলে। রাসেল মিয়া ২০০৪ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় শিশুটিকে মিষ্টি খাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে নির্জন জায়গায় নিয়ে ধর্ষণ করে। শিশুটির চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে পড়লে রাসেল মিয়া পালিয়ে যায়। পরে থানায় মামলা হলে পুলিশ রাসেল মিয়াকে গ্রেপ্তার করে।


মন্তব্য