kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


উল্লাপাড়ায় ট্রাক খাদে চালক-হেলপার নিহত

চার স্থানে আরো সাতজনের মৃত্যু

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়ায় ব্রিজের রেলিং ভেঙে চিনিবোঝাই ট্রাক খাদে পড়ে চালক ও হেলপার নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া ব্রাহ্মণবাড়িয়া, কুমিল্লার তিতাস, ফরিদপুরের মধুখালী ও নীলফামারী সদরে আলাদা দুর্ঘটনায় স্কুল ছাত্র এবং মুরগি ব্যবসায়ীসহ সাতজন মারা গেছে।

বিস্তারিত আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে :

সিরাজগঞ্জ : উল্লাপাড়া উপজেলায় পূর্ব দেলুয়া ব্রিজের রেলিং ভেঙে চিনিবোঝাই ট্রাক খাদে পড়ে চালক আব্বাস আলী ও হেলপার সোহাগ আলী নিহত হয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার ভোরে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ফলে বগুড়া-নগরবাড়ী মহাসড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সকালে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়। হাটিকুমরুল হাইওয়ে থানার ওসি আব্দুল কাদের জিলানী জানান, লাশ দুটি থানায় রয়েছে। এ ব্যাপারে মামলা হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : সদর উপজেলার ঘাটুর এলাকায় গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে বাস ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে দুজন নিহত হয়েছেন। তাঁরা হলেন সদরের আরিফ মিয়া ও সরাইলের মুসলিম লস্কর। হাইওয়ে পুলিশ দুর্ঘটনাকবলিত বাস ও অটোরিকশাটি জব্দ করেছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

দাউদকান্দি (কুমিল্লা) : কুমিল্লার তিতাস উপজেলায় গতকাল মঙ্গলবার আলাদা সড়ক দুর্ঘটনায় স্কুল ছাত্রসহ দুজন নিহত হয়েছে। জানা যায়, গতকাল ঢাকা-হোমনা সড়কের উপজেলার কড়িকান্দিতে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় সাইকেলআরোহী স্কুল ছাত্র ফজলে রাব্বি নিহত হয়। সে দড়িকান্দির শাহ আলমের ছেলে ও জিয়ারকান্দি মাতৃছায়া জুনিয়র হাই স্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্র ছিল। অন্যদিকে একই সড়কে ট্রাকচাপায় মারা গেছেন কড়িকান্দি বাজারের মুরগি ব্যবসায়ী মো. রাসেল মিয়া। ঘাতক ট্রাকটি জব্দ করেছে পুলিশ।

ফরিদপুর : ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে বাসের ধাক্কায় অটোভ্যানের আরোহী গরু বিক্রেতা মহিউদ্দিন নিহত হয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে মহাসড়কের মধুখালী উপজেলার ব্রাহ্মণকান্দা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। মহিউদ্দিন পাইকপাড়া গ্রামের সেকেন্দার মৃধার ছেলে। মধুখালী থানার ওসি রুহুল আমিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

নীলফামারী : সদর উপজেলার একটি মিলের সামনে বাসের ধাক্কায় দুজন নিহত হয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার সকালে নীলফামারী-সৈয়দপুর সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের মধ্যে আফজাল হোসেন উত্তরা ইপিজেডের সেভেন স্টার কম্পানির সহকারী ইলেকট্রিশিয়ান এবং ধরনী কান্ত রায় মাজেন বিডি লিমিটেডের শ্রমিক ছিলেন। একই ঘটনায় আহত শ্রমিক বিশ্বনাথ রায় রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ব্যাপারে আফজালের বড় ভাই তোফায়েল আহমেদ বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন। সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মশিউর রহমান জানান, ঘাতক বাসটি জব্দ করা হলেও চালক, হেলপার ও সুপারভাইজার পলাতক রয়েছে।


মন্তব্য