kalerkantho

রবিবার। ৪ ডিসেম্বর ২০১৬। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সিংড়ায় একজনকে পিটিয়ে হত্যা

তিন স্থানে মিলল আরো তিন লাশ

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



নাটোরের সিংড়ায় প্রতিপক্ষের হামলায় নজরুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া ঈশ্বরগঞ্জ, লক্ষ্মীপুর ও কেরানীগঞ্জ থেকে তিনজনের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

কালের কণ্ঠ’র প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

নাটোর : নাটোরের সিংড়ায় কলম ইউনিয়নের পাঙ্গাশিয়া গ্রামে প্রতিপক্ষের হামলায় গত বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে নজরুল ইসলাম নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় নিহতের ভাই সাহাদুল ফকির বাদী হয়ে ১৭ জনকে আসামি করে ওই দিন রাতেই একটি মামলা করেছেন। তবে পুলিশ এখনো কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নজরুল ইসলাম নাজিরপুর বাজারে দুধ বিক্রি করে বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় পূর্ব বিরোধের জেরে পাঙ্গাশিয়া এলাকায় নাঈম ও তার মামা হাফিজুলসহ কয়েকজন তাঁকে পিটিয়ে আহত করে। পরে স্থানীয়রা তাঁকে সিংড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সন্ধ্যায় নজরুলের মৃত্যু হয়।

সিংড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নাসির উদ্দিন মণ্ডল বলেন, অভিযুক্তরা পলাতক রয়েছে। তাদের গ্রেপ্তারে পুলিশি অভিযান চলছে।

ঈশ্বরগঞ্জ (ময়মনসিংহ) : ঈশ্বরগঞ্জের মহেশপুর গ্রামের একটি গভীর নলকূপের ঘর থেকে গতকাল শুক্রবার বেদেনা আক্তার (২৮) নামে এক নারীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তিনি মহেশপুর নামাপাড়া গ্রামের মো. আছেন আলীর মেয়ে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, গতকাল সকালে মহেশপুর গ্রামের এক কিশোর ঘাস কাটতে গিয়ে দরজা-জানালাহীন ওই ঘরটিতে নারীর লাশটি দেখতে পায়। এ সময় সে চিৎকার করলে গ্রামের লোকজন সেখানে ছুটে গিয়ে পুলিশে খবর দেয়। পরে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। সেখানে সেলিম নামে এক কিশোর লাশটি তার নিখোঁজ মায়ের বলে শনাক্ত করে। দুই দিন আগে তার মা বেদেনা আক্তার বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফেরেননি।

সেলিম জানায়, তার বাবা মো. মোসলেম উদ্দিনের সঙ্গে বনিবনা না হওয়ায় দুই বছর আগে তাঁদের ছাড়াছাড়ি হয়। তাঁর মা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছিলেন বলেও অভিযোগ করে সেলিম।

লক্ষ্মীপুর : লক্ষ্মীপুরে যৌতুুকের দাবিতে কোহিনুর বেগম (৩০) নামে এক গৃহবধূকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগ উঠেছে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে। গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সদর উপজেলার মান্দারী ইউনিয়নের গন্ধব্যপুর গ্রাম থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। কোহিনুর একই গ্রামের সাফি উল্লাহর মেয়ে এবং প্রবাসী কামাল হোসেনের স্ত্রী। কোহিনুরের বাবা সাফি উল্লাহ জানান, বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের দাবিতে তাঁর মেয়েকে মারধর করা হতো। তিনি যৌতুক দিয়ে মেয়ের জামাইকে বিদেশ পাঠান। সম্প্রতি মেয়ের দেবর বিদেশ যাওয়ার জন্য তাঁর কাছে এক লাখ টাকা দাবি করে। টাকা না পেয়ে মেয়েকে শারীরিক নির্যাতন ও শ্বাসরোধ হত্যা করে লাশ ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা বলে প্রচার করেছে। এ সময় তিনি মেয়ে হত্যার বিচার দাবি করেন।

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) : নিখোঁজের আট দিন পর রাসেল হাওলাদার (২৪) নামে এক রিকশাচালকের হাত বাঁধা গলিত লাশ উদ্ধার করেছে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার পুলিশ। গতকাল শুক্রবার বিকেলে হাসনাবাদ এলাকার একটি আবাসন প্রকল্পের বালুর মাঠের কাশবনের ভেতর থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। লাশের সুরতহাল রিপোর্ট শেষে ময়নাতদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ মিটফোর্ড হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নিহতের বাবা রহিম হাওলাদার বলেন, ‘রাসেল পেশায় রিকশাচালক। সে গত ২৬ আগস্ট রিকশা চালানোর উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফিরে আসেনি। শুক্রবার বিকেল ৪টায় লোকমুখে সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে আমার ছেলের লাশ দেখতে পাই। ’ এ ঘটনায় দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা হয়েছে।


মন্তব্য