kalerkantho


শ্রীপুরে যুবলীগ নেতাসহ দুজনকে মারধর

অভিযোগ ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, গাজীপুর   

২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



গাজীপুরের শ্রীপুরে ঝুট ব্যবসাকে কেন্দ্র করে স্থানীয় ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা যুবলীগ নেতাসহ দুজনকে মারধর করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলার তালতলী এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

মারধরের শিকার আকরাম হোসেন তেলিহাটী ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক এবং ডা. শামীম আহমেদ তালতলী এলাকার কাজী ফুডস কারখানার ব্যবস্থাপক। তাঁদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে যুবলীগ নেতা আকরাম হোসেন অভিযোগ করেন, তেলিহাটী ইউপি চেয়ারম্যান আবদুল বাতেন সরকারসহ তিনি দীর্ঘদিন ধরে কাজী ফুডস কারখানায় ঝুটের ব্যবসা করছেন। ২৪ আগস্ট ছাত্রলীগ নেতা জাহাঙ্গীর সরকারের নেতৃত্বে তার সহযোগীরা ওই কারখানার ব্যবস্থাপকের কাছে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। অন্যথায় কারখানার ঝুট ব্যবসা করতে দেওয়ার দাবি জানায়। দাবি করা চাঁদা কিংবা ঝুটের ব্যবসা করার সুযোগ না পেয়ে ক্ষিপ্ত হয় জাহাঙ্গীর। গত বুধবার সন্ধ্যায় তার নেতৃত্বে ৮-৯ জন সশস্ত্র নেতাকর্মী কয়েকটি মোটরসাইকেলে করে ওই কারখানার সামনে যায়। কারখানার প্রধান ফটকের সামনে পেয়ে ব্যবস্থাপক ডা. শামীম আহমেদ ও তাঁকে (আকরাম) বেদম মারধর করে ওই নেতাকর্মীরা। এ সময় স্থানীয়রা ছুটে এলে পর পর তিনটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটিয়ে পুরো এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করে তারা।

তবে অভিযুক্ত গাজীপুর জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর সরকার বলেন, ২৪ আগস্ট আমিসহ কয়েকজন নেতাকর্মী ওই কারখানায় গিয়ে ব্যবস্থাপকের কাছে বৈধভাবে ঝুট ব্যবসার সুযোগ চেয়েছিলাম। গত বুধবার সন্ধ্যায় কাউকে মারধর করা কিংবা ককটেল বিস্ফোরণেরও কোনো ঘটনা ঘটেনি।

এদিকে ওই ঘটনায় আকরাম হোসেন ছাত্রলীগ নেতা জাহাঙ্গীর সরকারসহ সুমন মিয়া, মো জুনায়েদ, শফিকুল ইসলাম, মো. জামান, মাজহারুল ইসলাম, আশিক ও রাসেলের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দিয়েছেন।

এ ব্যাপারে শ্রীপুর মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ফরিদুল ইসলাম বলেন, ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী নাকি ওই কারখানার সামনে গিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে এসেছে।


মন্তব্য