kalerkantho


কালিয়াকৈর

২৬ দিনের মেয়ের লাশ ফেলে পালালেন বাবা, আটক মা

কালিয়াকৈর (গাজীপুর) প্রতিনিধি   

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



গাজীপুরের কালিয়াকৈরে ২৬ দিনের মেয়ের লাশ রেখে পালিয়ে গেছেন বাবা শাজাহান আলী ওরফে মোন্নাব। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল বুধবার উপজেলার চান্দরা দক্ষিণপাড়া এলাকায়।

খবর পেয়ে পুলিশ দুপুরে শিশুটির লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। এ সময় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শিশুটির মা শাহানাজ বেগমকে আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নাটোরের সিংড়ার কাজীপুর এলাকার মুক্তার হোসেনের ছেলে শাজাহান আলী ওরফে মোন্নাব পাঁচ-ছয় বছর আগে কাজের সন্ধানে গাজীপুরের কালিয়াকৈরের চান্দরা দক্ষিণপাড়া এলাকায় আসেন। সেখানে মজিবর রহমানের বাড়ির একটি কক্ষ ভাড়া নিয়ে স্থানীয় একটি কারখানায় চাকরি নেন তিনি। এর কিছুদিন পর রাজশাহীর গোদাগাড়ীর ঘোমা এলাকার সামসুদ্দিনের মেয়ে শাহানাজকে বিয়ে করেন। এর এক বছর পর চাকরি ছেড়ে দেন মোন্নাব। পরে তাঁর স্ত্রী স্থানীয় লিবার্টি নিটওয়্যার লিমিটেড কারখানায় চাকরি নেন। এর পর থেকে তাঁদের সংসারে কলহ দেখা দেয়। মাঝেমধ্যেই স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হতো।

এর মধ্যে ২৬ দিন আগে তাঁদের ঘরে একটি মেয়ের জন্ম হয়। মেয়েটির নাম রাখা হয় মুন্নি আক্তার। গত মঙ্গলবার রাতে শিশুটিকে নিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন মা-বাবা। পরদিন বুধবার সকালে ঘুম থেকে উঠে মা শাহানাজ মেয়ের নাক দিয়ে রক্ত পড়তে দেখেন। এ সময় শাহানাজ ও তাঁর স্বামী বিষয়টি বাড়ির মালিক মজিবরকে জানান। মজিবর তাঁদের কক্ষে যাওয়ার আগেই শিশুটির মৃত্যু হয়। এ ঘটনার পর পরই মোন্নাব গা ঢাকা দেন। খবর পেয়ে পুলিশ দুপুরে ঘটনাস্থলে গিয়ে শিশুটির লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালে পাঠায়। এ সময় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শিশুটির মা শাহানাজকে আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

এ ব্যাপারে কালিয়াকৈর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মুক্তি মাহমুদ বলেন, শিশুটির নাক দিয়ে রক্ত বের হওয়ায় এবং ঘটনার পর পরই বাবা পালিয়ে যাওয়ায় বিষয়টি রহস্যজনক মনে হচ্ছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্টের পর মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে। এ ঘটনায় শিশুটির মাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।


মন্তব্য