kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


ইসলামপুরে ইউপি চেয়ারম্যানের চাল আত্মসাতের অভিযোগ

জামালপুর প্রতিনিধি   

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



ইসলামপুরে এক ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে প্রায় ২৫০ জন নারীর জন্য বরাদ্দ ভিজিএফের চাল আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে ঘটনার শিকার ওই নারীরা জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছে।

তবে ওই ইউপি চেয়ারম্যান এ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আগামীকাল (আজ) তাদের চাল দেওয়া হবে।

জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলার চিনাডুলী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুস ছালামের বিরুদ্ধে ২৪২ জন নারীর জন্য বরাদ্দকৃত ভিজিএফের চাল আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ব্যাপারে বঞ্চিত সুবিধাভোগীরা জেলা প্রশাসকের কাছে একটি অভিযোগ দায়ের করেছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, দরিদ্র নারীদের উন্নয়নে ত্রাণ মন্ত্রণালয় থেকে ওই ইউনিয়নের ২৪২ জন নারীকে প্রতি মাসে ৩০ কেজি করে ভিজিএফের চাল দেওয়ার কথা ছিল। গত জুনে ২৪২ জন নারীর জন্য বরাদ্দ চাল বিতরণ না করে ইউপি চেয়ারম্যান আবদুস ছালাম কালোবাজারে বিক্রি করে দেন। এ ছাড়া জুলাইয়ের চাল এখনো বিতরণ করেননি। এদিকে চাল না পেয়ে সুবিধাভোগী নারীরা গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে জেলা প্রশাসক মো. শাহাবুদ্দিন খানের কাছে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছে।

অভিযোগকারীরা জানায়, তারা বন্যা ও নদীভাঙন এলাকার অসহায় মানুষ। প্রতি মাসে তাদের ৩০ কেজি করে চাল দেওয়া হয়। গত জুন থেকে চেয়ারম্যান ওই চাল বিতরণ বন্ধ রেখেছেন। তারা জানতে পেরেছে চেয়ারম্যান জুনের চাল কালোবাজারে বিক্রি করে দিয়েছেন।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আবদুল হামিদ বলেন, চেয়ারম্যান পরিষদের কাউকে না জানিয়ে ২৪২ জনের সাত হাজার ২৬০ কেজি চাল কালোবাজারে বিক্রি করে দিয়েছেন। এ ছাড়া জুলাইয়ের চালও এখন পর্যন্ত বিতরণ করেননি। বানভাসি মানুষ এ নিয়ে ক্ষুব্ধ। বিষয়টি জেলা প্রশাসককে জানানো হয়েছে।

তবে ওই অভিযোগ অস্বীকার করেন ইউপি চেয়ারম্যান আবদুস ছালাম বলেন, ‘চাল রাখার জায়গা ছিল না। এ কারণে চাল বিতরণ করা যায়নি।


মন্তব্য