kalerkantho

রবিবার । ১১ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


শেরপুরে প্রতিমা ভাঙচুর লুট, আটক ৩

কোটালীপাড়ায় মন্দিরে ককটেল বিস্ফোরণ

শেরপুর ও গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি   

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



শেরপুরের শ্রীবরদী পৌর শহরের একটি মন্দিরের প্রতিমা ভাঙচুরের পাশাপাশি লুটপাট করেছে দুর্বৃত্তরা। গতকাল বুধবার ভোরের এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ।

এদিকে খবর পেয়ে দুপুরে শেরপুরের পুলিশ সুপার মো. মেহেদুল করিম ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সালাহউদ্দিন শিকদার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তাঁরা ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে স্থানীয় পূজা উদ্যাপন পরিষদের নেতাদের আশ্বাস দিয়েছেন।

উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক চন্দন দাস ও মন্দির কমিটির সভাপতি হারু সাহা বলেন, ‘স্থানীয় প্রভাবশালী আবুল হোসেন মন্দিরের জায়গা দখল করে মাছ চাষ করছে। আমাদের ধারণা, নৈশপ্রহরীকে দিয়ে ওই ঘটনা ঘটানো হয়েছে। তাকে আমাদের সম্প্রদায়ের লোক ভয়ে কিছু বলতে সাহস পায় না। সে ছাড়া স্থানীয় মুসলিম সম্প্রদায়ের সবাই নানাভাবে আমাদের সহায়তা করে। ’

শ্রীবরদী থানার ওসি এস আলম জানান, এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এ ব্যাপারে শেরপুরের পুলিশ সুপার মো. মেহেদুল করিম বলেন, ঘটনাটি দুঃখজনক। এর সঙ্গে জড়িতদের শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে। এরই মধ্যে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

এদিকে গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ার দেবগ্রামে সর্বজনীন দুর্গা মণ্ডপে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এতে মন্দিরের কিছুটা ক্ষতি হয়েছে। তবে এতে কেউ হতাহত হয়নি। গত মঙ্গলবার রাত আড়াইটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ধারণা করা হচ্ছে, মণ্ডপের বাইরে থেকে ককটেল ছুড়ে বিস্ফোরণ ঘটায় দুর্বৃত্তরা।

খবর পেয়ে বুধবার ভোরে কোটালীপাড়া থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বিস্ফোরণের বিভিন্ন আলামত সংগ্রহ করেছে। এসব আলামত পরীক্ষার জন্য বোমা বিশেষজ্ঞদের কাছে পাঠানো হবে।

মণ্ডপের পাশে বসবাসকারী দেবগ্রাম ঊমাচরণ-পূর্ণচরণ সর্বজনীন উচ্চ বিদ্যালয়ের হোস্টেলে অবস্থানকারী শিক্ষক সহাদেব বিশ্বাস বলেন, রাত আনুমানিক আড়াইটার দিকে হঠাত্ বিকট শব্দ শুনে ঘুম ভাঙে। পরে মণ্ডপের কাছে প্রচুর ধোঁয়া দেখা যায়।


মন্তব্য