kalerkantho

বুধবার । ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ । ৫ মাঘ ১৪২৩। ১৯ রবিউস সানি ১৪৩৮।


বান্দরবানেও ‘জুজুর ভয়’

নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান   

৩ এপ্রিল, ২০১৬ ০০:০০



ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনকে ঘিরে পার্বত্য জেলা বান্দরবানেও পাহাড়ি বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগ উঠেছে। এ ধরনের হুমকিধমকি চলতে থাকলে রাঙামাটির মতো বান্দরবানের পরিস্থিতিও নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে বলে ধারণা করছে সংশ্লিষ্টরা। গতকাল শনিবার বান্দরবান ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল ও কলেজ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত আইনশৃঙ্খলাবিষয়ক এক মতবিনিময় সভায় এ আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়। এলাকার সামগ্রিক পরিস্থিতি পর্যালোচনার জন্যে সেনাবাহিনীর উদ্যোগে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। বান্দরবানের রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ফখরুল আহসান এতে প্রধান অতিথি এবং বোমাং সার্কেল চিফ রাজা উ চ প্রু বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

সেনাবাহিনী ও বিজিবির বিভিন্ন ব্যাটালিয়ন কমান্ডার এবং ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তা, বিভিন্ন মৌজা প্রধান (হেডম্যান) ও পাড়া প্রধানরা (কার্বারি) বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে বেতছড়া মৌজার হেডম্যান হ্লা থোয়াই হ্রী ও সুয়ালক মৌজার হেডম্যান রাং লাই ম্রো অভিযোগ করেন, একটি আঞ্চলিক দলের ক্যাডাররা ভোটারদের ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। তাঁরা আশঙ্কা করছেন, এ ধরনের পরিস্থিতি অব্যাহত থাকলে রাঙামাটির মতো বান্দরবানেও সরকারদলীয় প্রার্থীরা নির্বাচনী প্রচারণা বন্ধ করে দিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াতে পারেন।

উপস্থিত হেডম্যান-কার্বারিদের উদ্দেশে বান্দরবান অঞ্চলের সেনাবাহিনীর কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ফখরুল আহসান বলেন, এলাকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সরকার জিরো টলারেন্স নীতি নিয়েছে। হেডম্যান-কার্বারিদের তৃণমূল পর্যায়ে সরকারের ভাতাভোগী প্রতিনিধি উল্লেখ করে তিনি বলেন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় আপনাদের দায়িত্বও সেনাবাহিনী, বিজিবি বা পুলিশের চেয়ে কম নয়।

শঙ্খ নদে মাছ ধরতে গিয়ে ডুবে মৃত্যু

শঙ্খ নদে মাছ ধরতে গিয়ে ডুবে উ চিং মং (৪৭) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। গত শুক্রবার রাতে রোয়াংছড়ির বেতছড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। শনিবার সকালে স্থানীয়দের সহায়তায় পুলিশ তাঁর লাশ উদ্ধার করে। উ চিং মংয়ের বাড়ি রোয়াংছড়ির বরইতলি গ্রামে। বান্দরবান পুলিশের বিশেষ শাখার ওসি মোহাম্মদ বাছা মিয়া জানান, অন্য কয়েকজন বন্ধুর সঙ্গে শঙ্খ নদে মাছ ধরার সময় বেতছড়া পয়েন্টে এসে উ চিং মং হঠাৎ পানিতে তলিয়ে যান। এতে ভয় পেয়ে অন্যেরা দৌড়ে তীরে উঠে আসে। পরে বিষয়টি স্থানীয় পাড়া প্রধান ও পুলিশকে জানানো হয়। শনিবার সকালে কয়েক ঘণ্টা চেষ্টার পর উ চিং মংয়ের লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ব্যাপারে রোয়াংছড়ি থানায় একটি মামলা হয়েছে। পুলিশ জানায়, ময়নাতদন্তের জন্য লাশ বান্দরবান সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।


মন্তব্য