kalerkantho


মাদারীপুরে বালিশ চাপায় স্ত্রী হত্যা

কাঁঠালিয়ায় ছাত্র, পার্বতীপুরে নারীর লাশ

প্রিয় দেশ ডেস্ক   

৩ এপ্রিল, ২০১৬ ০০:০০



মাদারীপুরে যৌতুকের জন্য গৃহবধূকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঝালকাঠির কাঁঠালিয়ায় কলেজ ছাত্র ও দিনাজপুরের পার্বতীপুরে নারীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

মাদারীপুর : যৌতুকের জন্য রিমা আক্তার নামের এক গৃহবধূকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে। গতকাল শনিবার সকালে রিমার লাশ সদর হাসপাতালের বারান্দায় ফেলে পালিয়ে গেছে অভিযুক্তরা। পরিবার, হাসপাতাল ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সদর উপজেলার ব্রাহ্মদী গ্রামের মান্নান হাওলাদারের মেয়ে রিমা আক্তারের সঙ্গে কয়েক বছর আগে একই উপজেলার রগুরামপুর গ্রামের জব্বার আকনের ছেলে সোহান হোসেন বাবু আকনের বিয়ে হয়। বিয়ের সময় এক লাখ টাকা যৌতুক দেওয়া হয়। আরো এক লাখ টাকা চেয়ে সোহান ও তার পরিবার রিমাকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করতে থাকে। এর সূত্র ধরে শুক্রবার রাতে বালিশ চাপা দিয়ে রিমাকে হত্যা করা হয় বলে তাঁর পরিবারের অভিযোগ। পরে লাশ হাসপাতালের বারান্দার ট্রলির ওপর রেখে পালিয়ে যায় সোহান ও তার পরিবারের লোকজন। খবর পেয়ে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মাদারীপুর মর্গে পাঠায়। এ ব্যাপারে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জিয়াউল মোর্শেদ জানান, অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

পার্বতীপুর (দিনাজপুর): পার্বতীপুর উপজেলার মোস্তফাপুর গ্রামে নিজ বাড়ির রান্নাঘর থেকে জাহেনারা বেগম নামের এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশ গতকাল শনিবার দুপুরে লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য দিনাজপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। ’

ঝালকাঠি : কাঁঠালিয়া উপজেলায় রহমাতুল্লাহ আকন নামের এক কলেজ ছাত্রের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল শনিবার সকালে কাঁঠালিয়া বাজারের কাপড় ব্যবসায়ী মাহতাব উদ্দিন খলিফার বাসার সামনে একটি কাঁঠালগাছ থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। রহমাতুল্লাহ উপজেলার উত্তর আউরা গ্রামের আলী আকবর আকনের ছেলে। সে স্থানীয় তোফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া ডিগ্রি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র ছিল।


মন্তব্য