kalerkantho


নবীনগরের প্রথম নারী চেয়ারম্যান

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি   

২ এপ্রিল, ২০১৬ ০০:০০



আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চেয়ে ব্যর্থ হয়েছিলেন। কিন্তু সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান স্বামীর অসমাপ্ত কাজ শেষ করতে বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে পুঁজি করে মাঠে লড়াইয়ের ঘোষণা দেন তিনি।

সেই লড়াইয়ে তিনি জিতেছেনও। গৃহবধূ থেকে এবার হয়েছেন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান। তিনি নবীনগরের প্রথম নারী ইউপি চেয়ারম্যান মৌসুমী আক্তার।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার পূর্বভাগ ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে মৌসুমী আক্তার দুই হাজার ৭১৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শামীম রেজা পেয়েছেন দুই হাজার ৩২৯ ভোট। বৃহস্পতিবার নবীনগরের যে ১১টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়, এর ৫২ জন চেয়ারম্যান প্রার্থীর মধ্যে মৌসুমী আক্তারই ছিলেন একমাত্র নারী প্রার্থী।

প্রথমবারের মতো নবীনগরে একজন নারী চেয়ারম্যান মনোনীত হওয়ায় উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন নারী নেত্রী ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট তাসলিমা সুলতানা খানম নিশাত। প্রতিক্রিয়ায় কালের কণ্ঠকে তিনি বলেন, ‘এর মধ্য দিয়ে নারীদের অগ্রযাত্রা আরো একধাপ এগিয়ে গেল। আমি মনে করি, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নারীদের অগ্রযাত্রা শুরু হয়ে গেছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলায়ও তিনজন নারী প্রার্থী আছে। আশা করছি, একজন হলেও দলের মনোনয়ন পাবে। আমরা (নারীরা) ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় একটা বিপ্লব ঘটাতে চাই। ’ তবে শুধু নবীনগরে নয়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায়ই প্রথম কোনো নারী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছে বলে জানান তিনি।

বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হওয়ার পর নারীদের উন্নয়নে কাজ করার কথা বলেছেন মৌসুমী আক্তার। দলের প্রতি কোনো রাগ নেই জানিয়ে গতকাল শুক্রবার বিকেলে এ প্রতিবেদককে তিনি বলেন, ‘আমার স্বামী দলকে মনেপ্রাণে ভালোবাসতেন। আমিও দলের ছিলাম, আছি, থাকব। মনোনয়ন দেয়নি বলে দলের প্রতি আমার কোনো ক্ষোভ নেই। ’ স্বামীর অসমাপ্ত কাজ শেষ করতে সবার সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মৌসুমী আক্তার গত ২০ জানুয়ারি মৃত্যুবরণ করা পূর্বভাগ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান খায়ের বারীর স্ত্রী। এবারের নির্বাচনে তিনি দলীয় মনোনয়ন দাবি করলেও তা জোটেনি। কিন্তু এলাকাবাসীর দাবির মুখে তিনি চেয়ারম্যান পদে লড়ার ঘোষণা দেন।

এদিকে বেসরকারিভাবে ঘোষিত ফলাফল অনুযায়ী, নবীনগরের ১১ ইউনিয়নের মধ্যে ৯টিতে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী জয়লাভ করেছেন। পূর্ব ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মৌসুমী আক্তার ও বীরগাঁও ইউনিয়নে আরেক বিদ্রোহী কবির আহম্মেদ জয়লাভ করেন।


মন্তব্য