kalerkantho

সোমবার। ২৩ জানুয়ারি ২০১৭ । ১০ মাঘ ১৪২৩। ২৪ রবিউস সানি ১৪৩৮।

স্বস্তির ভোট

রংপুর অফিস   

১ এপ্রিল, ২০১৬ ০০:০০



স্বস্তির ভোট

রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে ১০৭টি কেন্দ্রের মধ্যে ৮৭টিকে ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করেছিল নির্বাচন কমিশন। তবে শেষ পর্যন্ত কোনো কেন্দ্রে গোলোযোগ হয়নি। সুষ্ঠুভাবে ভোট দিতে পেরে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন ভোটাররা।

চৈত্রকোল, ভেণ্ডাবাড়ী, বড়দরগা, কুমেদপুর, মদনখালী, টুকুরিয়া, শানেরহাট, পাঁচগাছী, মিঠিপুর, চতরা ও কাবিলপুর ইউপিতে মোট ৫১ জন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শ্বশুরবাড়ি পীরগঞ্জে। জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এ এলাকার সংসদ সদস্য। এ কারণে এ নির্বাচন আওয়ামী লীগের জন্য অনেকটা গুরুত্বপূর্ণ। সহিংস ঘটনা এড়াতে প্রশাসন আগে থেকে ছিল তত্পর।

বড়দরগা ইউপির বড়দরগা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সকাল ১০টার দিকে গিয়ে দেখা যায়, নারী ভোটার প্রায় শূন্য। নির্বাচনী কর্মকর্তারা বসে আছেন। ২০ থেকে ২৫ জন পুরুষ ভোটার। কেন্দ্রের বাইরে চোখে পড়ে কয়েকজন নারীর। দানিয়েলের পাড়া এলাকার ছফুরা বেগম, মরিয়ম ও মকিমপুরের আলেমা খাতুন বলেন, ‘ভোট দিবার যায়া জান (প্রাণ) হারামো? খোঁজখবর নিয়া দেখি-শুনি তারপর যাই। ’

মিঠিপুর ইউপির রওশনপুর সরকারি প্রথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দুপুর ১২টার দিকে ভোটারের চাপ বাড়তে থাকে। দুরামিঠিপুর আলিম মাদ্রাসা কেন্দ্রে ভোট দিতে আসা নিশিকান্ত বলেন, ‘গণ্ডগোল হইবে এই ভয়ে বিয়ানা (সকালে) বাড়িত থাকি বেরাই নাই। খোঁজখবর নিয়া তারপরে আসনু। ফিরি যায়া বউক (স্ত্রীকে) নিয়া আসিম। ’

কুমেদপুর ইউপির স্বতন্ত্র প্রার্থী (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী) মোজাম্মেল হক লাল বলেন, ‘সুষ্ঠুভাবে ভোট হয়েছে। জনগণের রায়েই চেয়ারম্যান নির্বাচিত হবেন। ’

পীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বড়দরগা ইউপির দলীয় প্রার্থী মোতাহারুল হক বাবলু বলেন, ‘শান্তিপূর্ণভাবে সব ইউনিয়নে ভোট হয়েছে। ’

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা কে এন রায় নিয়তী বলেন, ‘১১টি ইউনিয়নে সুষ্ঠু ভোটগ্রহণের জন্য আগে থেকেই প্রস্তুতি ছিল। ’


মন্তব্য