kalerkantho


বেগমগঞ্জে এক দিনে দুই যুবক খুন

নোয়াখালী প্রতিনিধি   

১ এপ্রিল, ২০১৬ ০০:০০



নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলায় গত বুধবার সন্ধ্যা ও রাতে পৃথক ঘটনায় দুজনকে খুন করা হয়েছে।

দক্ষিণ শরীফপুর গ্রামে ছিনতাইকারীকে চিনে ফেলায় মোটরসাইকেলের মিস্ত্রি ওমর ফারুককে (২৭) গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

এ সময় তাঁর সঙ্গে মোটরসাইকেলের আরোহী তাঁর ভাই মিলন (২৪) সন্ত্রাসীদের অস্ত্রের আঘাতে আহত হন। গত বুধবার রাত সাড়ে ১১টায় শরীফপুর গ্রামের কামাল চেয়ারম্যানের পুলের কাছে এটি ঘটে। নিহত ফারুক ব্যাপারীবাড়ির নুরুল আমিনের ছেলে।

আহত মিলন জানান, বড় ভাই ফারুকের বেগমগঞ্জের চৌমুহনী পূর্ব বাজারে মোটরসাইকেল মেরামতের দোকান রয়েছে। তিনি (মিলন) দর্জি দোকানে কাজ করেন। বুধবার রাত ১১টায় ফারুক দোকান বন্ধ করে তাঁকে নিয়ে মোটরসাইকেলে করে শরীফপুরে গ্রামের বাড়িতে ফিরছিলেন। পথে ওত পেতে থাকা চার-পাঁচজন অজ্ঞাতপরিচয় দুর্বৃত্ত মোটরসাইকেল থামিয়ে মোবাইল ফোনসেট ও টাকা নিয়ে নেয়। এ সময়ে তাঁর ভাই ‘চিনেছি’ বলে জানান। এটা শুনে এক দুর্বৃত্ত ফারুকের মাথায় অস্ত্র ঠেকিয়ে গুলি করে।

তাঁকেও অস্ত্রের বাঁট দিয়ে মাথায় আঘাত করে। মাথায় গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলে ফারুক মারা যান। ঘটনার পর দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়।

বেগমগঞ্জ থানার ওসি ফারুখ আহমেদ বলেন, ‘পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আলামত সংগ্রহ করেছে। নিহতের মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। সন্ত্রাসীদের ধরার জন্য পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। ’

অন্যদিকে বেগমগঞ্জ উপজেলার খুরশিদা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে স্থানীয় আওয়ামী লীগ সমর্থক সোহেলকে (২২) ক্রিকেট ব্যাট ও স্ট্যাম্প দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা। গত বুধবার বিকেলে খেলার মাঠে তাঁকে মারার পর নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নেওয়ার পর সন্ধ্যা ৭টায় তাঁর মৃত্যু ঘটে। তিনি ওই ইউনিয়নের চান কাশিমপুর গ্রামের খোরশেদ আলমের ছেলে।

গোপালপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম জানান, নিহত সোহেল আগে ছাত্রদল করতেন। কিছুদিন আগে তিনি আওয়ামী লীগে যোগ দেন। এটা জামায়াত, শিবির ও বিএনপিকর্মীরা মেনে নিতে পারেনি। বুধবার বিকেলে ওই মাঠে খেলতে গেলে সন্ধ্যার আগে শিবিরকর্মী হুমায়ুনের নেতৃত্বে ৮-১০ জন ব্যক্তি তাঁকে ক্রিকেটের ব্যাট ও স্ট্যাম্প দিয়ে প্রচণ্ড মেরে মাথা থেঁতলে দেয়। ওসি ফারুখ আহমেদ বলেন, ‘হত্যাকারীদের ধরার জন্য পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে। ’


মন্তব্য