kalerkantho

বুধবার । ২৫ জানুয়ারি ২০১৭ । ১২ মাঘ ১৪২৩। ২৬ রবিউস সানি ১৪৩৮।


মাদক ব্যবসা নিয়ে দ্বন্দ্ব

রূপগঞ্জে র‌্যাবের সোর্সকে হাত পায়ের রগ কেটে হত্যা

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি   

২৯ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



রূপগঞ্জে খোরশেদ আলম (৪৪) নামের র‌্যাবের এক সোর্সকে হাত-পায়ের রগ কেটে ও কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। সোমবার ভোরে উপজেলার চনপাড়া পুনর্বাসন কেন্দ্রে ঘটে এ ঘটনা।

নিহত খোরশেদ আলম ওই এলাকার ওমেদ আলীর ছেলে। এ ঘটনায় মামুন মিয়া (২৩) নামের একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মামুন একই এলাকার আব্দুল হান্নানের ছেলে।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে রূপগঞ্জ থানার ওসি মাহমুদুল ইসলাম জানান, খোরশেদ আলম মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন। ছয় মাস আগে মাদক ব্যবসার অভিযোগে তাঁকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছিল।

তিনি মাঝেমধ্যে র‌্যাবের সোর্স হিসেবেও কাজ করতেন। বেশ কয়েক দিন ধরে চনপাড়া পুনর্বাসন কেন্দ্রের মাদক ব্যবসায়ী সাহাবুদ্দিনের সঙ্গে তাঁর বিরোধ চলছিল।

গত রবিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে চার-পাঁচজন লোক খোরশেদকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। ভোরে চনপাড়া পুনর্বাসন কেন্দ্রের কাছে শীতলক্ষ্যা নদীর চরে নিয়ে হাত-পা বেঁধে মুখে স্কচটেপ লাগিয়ে শরীরের বিভিন্ন অংশে কুপিয়ে জখম করা হয়।

এ ছাড়া তাঁর হাত-পায়ের রগ কেটে ফেলা হয়। উপড়ে ফেলা হয়েছে তাঁর দুই চোখ। পরে রাত আড়াইটার দিকে একই এলাকার খোকন নামের একজন খোরশেদকে মেরে ফেলা হয়েছে বলে তাঁর পরিবারের লোকজনকে খবর দেয়। খবর পেয়ে তাঁরা ঘটনাস্থল থেকে খোরশেদকে মুমুর্ষূ অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ব্যাপারে নিহত খোরশেদ আলমের বাবা ওমেদ আলী বলেন, কয়েক মাস আগে জামাল গ্রুপ ও সাহাবুদ্দিন গ্রুপের লোকজনকে ফেনসিডিলসহ র‌্যাবের কাছে ধরিয়ে দিয়েছিল খোরশেদ। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে জামাল ও সাহাবুদ্দিনসহ তাদের লোকজন বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করেছে বলে মৃত্যুর আগে খোরশেদ জানিয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ১৩ মার্চ ভোরে একই এলাকায় মাদক ব্যবসায় বাধা দেওয়ায় বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে মনির হোসেন নামের এক যুবককে হত্যা করে মাদক ব্যবসায়ীরা।


মন্তব্য