kalerkantho


ভাণ্ডারিয়ার ইউনুস নিখোঁজ

‘ভোটকেন্দ্রে গুলির পর আর বাড়ি ফেরেননি’

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, পিরোজপুর   

২৯ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়ার গোলবুনিয়া গ্রামের দিনমজুর ইউনুস হাওলাদার (৩৫) এক সপ্তাহ ধরে নিখোঁজ রয়েছেন। পরিবারের দাবি, ইউনুস পাশের মঠবাড়িয়ার ধানীসাফা ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে ভোটকেন্দ্রে ফল জানতে গিয়ে আর বাড়ি ফেরেননি। গতকাল সোমবার পর্যন্ত ইউনুসের খোঁজ পায়নি তাঁর পরিবার।

পরিবারটি বলছে, গত ২২ মার্চ বিকেল ৩টার দিকে ধানীসাফা ইউনিয়নের সাফা ডিগ্রি কলেজ ভোটকেন্দ্রে গোলযোগের খবর শুনে তা দেখতে বাড়ি থেকে বের হন ইউনুস হাওলাদার। রাতে ওই কেন্দ্রে ভোটের ফল ঘোষণা নিয়ে চরম উত্তেজনা, গোলযোগের সৃষ্টি হলে বিজিবি ও পুলিশের গুলিতে পাঁচজন নিহত ও বেশ কয়েকজন আহত হয়। এ ঘটনার পর ইউনুস আর বাড়ি ফিরে আসেননি। ইউনুস ভাণ্ডারিয়ার তেলিখালী ইউনিয়নের গোলবুনিয়া গ্রামের হামেদ হাওলাদারের ছেলে।

ইউনুসের স্ত্রী তাজেনুর বেগম জানান, ইউনুস নিখোঁজের পর স্থানীয় আত্মীয়স্বজনের বাড়ি এবং বরিশাল, মঠবাড়িয়া ও ভাণ্ডারিয়া হাসপাতালে তাঁর সন্ধান করা হয়। না পেয়ে পরে গত শনিবার তাজেনুর বাবা মো. ফারুক গাজীকে সঙ্গে নিয়ে মঠবাড়িয়া থানায় এ বিষয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করতে যান। তবে পুলিশ এ ঘটনায় কোনো জিডি নেয়নি। ফলে তাজেনুর ছেলে রুবেল (১০) ও মেয়ে কুলসুমকে (৮) নিয়ে উত্কণ্ঠার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন। শিশু দুটি মঠবাড়িয়ার ধানীসাফা ছালেহিয়া মাদ্রাসায় পড়ছে। পরিবারে ইউনুস একমাত্র উপার্জনক্ষম। তাই ইউনুসের নিখোঁজে দরিদ্র পরিবারটি আরো কষ্টের মধ্যে পড়েছে। এ অবস্থায় শিশু দুটির লেখাপড়াও বন্ধ হয়ে যেতে পারে।

মঠবাড়িয়া থানার ওসি খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন, ভোটকেন্দ্রে গিয়ে নিখোঁজ হওয়ার কোনো খবর তাঁর জানা নেই। কেউ এ রকম কোনো জিডি নিয়ে থানায়ও আসেনি।


মন্তব্য