kalerkantho

মঙ্গলবার। ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ । ৯ ফাল্গুন ১৪২৩। ২৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৩৮।


সাতক্ষীরায় অভিযোগ

পুলিশ টাকা খেয়ে নৌকা ডুবিয়েছে

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি   

২৮ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



সাতক্ষীরার দেবহাটার কুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে পুলিশ টাকা খেয়ে পরিকল্পিতভাবে নৌকাকে ডুবিয়ে দিয়েছে। গতকাল রবিবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এমন অভিযোগ করেছেন জেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ ও আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী আসাদুল হক।

লিখিত বক্তব্যে আসাদুল হক বলেন, নির্বাচনের সাত দিন আগে থেকে পুলিশ এলাকায় গণগ্রেপ্তারের ভয় দেখিয়ে ত্রাস সৃষ্টি করে। এতে পুলিশি হয়রানির ভয়ে সাধারণ মানুষ আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। নির্বাচনের আগে পুলিশ প্রতিটি কেন্দ্রে গিয়ে নৌকা প্রতীকের বিপক্ষে স্বতন্ত্র প্রার্থী আনারস প্রতীকে ভোট চেয়ে প্রচারণা চালায়। তিনি অভিযোগ করেন, পুলিশ প্রতিদিন প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ইমাদুল ইসলামের বাড়িতে খাওয়াদাওয়া করেছে। ভোটের আগের দিন রাতে জেলা পুলিশের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ইমাদুল ইসলামকে সঙ্গে নিয়ে কেন্দ্রে কেন্দ্রে ঘুরেছেন। সকালে ভোট শুরু হলে তাঁর ইউনিয়নের ৯টি কেন্দ্র থেকে পুলিশের সামনে স্বতন্ত্র প্রার্থীর লোকজন নৌকা মার্কার এজেন্টদের বের করে দেয়। পুলিশের প্রশ্রয় পেয়ে এখন বিএনপি-জামায়াতের লোকজন আওয়ামী লীগকর্মীদের ওপর হামলার সুযোগ পাচ্ছে। নৌকায় ভোট দেওয়ার কারণে ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ইমাদুল ইসলামের মারমুখী আচরণে বাড়িছাড়া হয়েছে অনেকেই।

আসাদুল হকের অভিযোগ, পুলিশ মোটা অঙ্কের টাকা নিয়ে ইমাদুল ইসলামের পক্ষ নেয়। নির্বাচনের আগে ও পরে পুলিশ, জামায়াত-বিএনপি ও ইমাদুল এক কাতারে যাওয়ায় আওয়ামী লীগের লোকজন ভয়ে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। গত শনিবার রাতে তাঁকে হত্যার হুমকি দেওয়া হয়েছে। তিনি ইমাদুল ইসলামের অর্থ ব্যয়ের তদন্ত দাবি করে বলেন, পুলিশ টাকা খেয়ে নৌকা প্রতীককে ডুবিয়ে দিয়েছে।


মন্তব্য